ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকায় গুলিতে ২ বিএসএফ নিহত

ভরতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ সীমান্তে সহকর্মীর এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণে কর্মকর্তাসহ ২ বিএসএফ জওয়ান নিহত হয়েছেন। পরে অভিযুক্ত জওয়ান উত্তম সূত্রধর সীমান্ত চৌকির কমান্ডারের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন।

আজ (৪ আগস্ট) সকালে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকার ওই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। অভিযুক্ত জওয়ান উত্তম সূত্রধরকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ সূত্রে প্রকাশ, রায়গঞ্জ থানার ভাতুন গ্রাম পঞ্চায়েতের ভারত- বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকার মালদাখণ্ড সীমান্ত চৌকির অন্তর্গত সীমান্ত সড়কে প্রহরার কাজে নিযুক্ত ছিলেন বিএসএফের পরিদর্শক মহিন্দর সিং ভাট্টি, কনস্টেবল অনুজ কুমার এবং কনস্টেবল উত্তম সূত্রধর। সকালে আচমকা বিএসএফ জওয়ান উত্তম সূত্রধর তার স্বয়ংক্রিয় রাইফেল থেকে সহকর্মীদের লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন বিএসএফের পরিদর্শক মহিন্দর সিং ভাট্টি ও কনস্টেবল অনুজ কুমার। ঘাতক বিএসএফ জওয়ান উত্তম সূত্রধর অবশ্য মালদাখণ্ড সীমান্ত চৌকির কমান্ডারের কাছে গিয়ে আত্মসমর্পণ করেছেন। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

রায়গঞ্জ পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার সুমিত কুমার বলেন, এক বিএসএফ জওয়ানের গুলিতে তার দুই সহকর্মীর মৃত্যু হয়েছে। খবর পেয়েই রায়গঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। অভিযুক্ত জওয়ান আত্মসমর্পণ করেছে। গোটা ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ। উত্তম সূত্রধর নামে ওই জওয়ান ঠিক কী কারণে সহকর্মীদের গুলি করে হত্যা করেছেন তা এখনও জানা যায়নি।

অর্থসূচক/এএইচআর