বাবা মারা যাওয়ার ছয়দিন পর ছেলেকে জানালো হাসপাতাল
শুক্রবার, ৭ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বাবা মারা যাওয়ার ছয়দিন পর ছেলেকে জানালো হাসপাতাল

কলকাতা মেডিকেল কলেজে বাবাকে ভর্তি করেছিলেন এক ব্যক্তি। এরপর যতবার ফোন করেছেন হাসপাতাল থেকে বলা হয়েছে, স্থিতিশীল আছেন রোগী। টানা ছয়দিন পর বাবার খোঁজে হাসপাতালে গিয়ে ছেলে জানতে পারলেন ভর্তির দিনই মারা গিয়েছেন বাবা। মর্মান্তিক এই ঘটনায় প্রশ্নের মুখে ভারতের সরকারি স্বাস্থ্যসেবা।

জানা গেছে, এক বছর ধরে ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হাওড়ার সলপের অজয় মান্না। জুন মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে তার অল্প জ্বরও ছিল। গত বৃহস্পতিবার শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ায় প্রথমে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। সেখানে পরীক্ষার পর জানানো হয় তার করোনার উপসর্গ রয়েছে, এমআর বাঙুরে নিয়ে যেতে হবে। অ্যাম্বুলেন্সে করে রোগীকে এমআর বাঙুরে নিয়ে গেলে তারা জানায়, সেখানে শুধুমাত্র করোনা পজিটিভ হলেই ভর্তি রাখা যায়। এরপর তাকে নিয়ে যাওয়া হয় কলকাতা মেডিকেল কলেজে। করোনা উপসর্গ থাকায় ওই রোগীকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। প্রাথমিকভাবে এই ওয়ার্ডে রেখেই করোনা টেস্ট করা হয়। পজিটিভ হলে তবে ভ্‌র্তি করা হয় কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের কোভিড ওয়ার্ডে।

ভ্‌র্তির পর হাসপাতাল থেকে রোগীর পরিবারকে বলা হয়, বাড়ির কারো থাকার প্রয়োজন নেই। সেইসঙ্গে দিয়ে দেওয়া হয় হেল্প লাইন নাম্বারও। সেই নাম্বারে নিয়মিত ফোন করলে বলা হত, রোগী স্থিতিশীল আছেন। ছয়দিন পর মঙ্গলবার চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলতে হাসপাতালে যান ওই রোগীর ছেলে রবিন। ওয়ার্ডে গিয়ে দেখেন, অন্য লোক শুয়ে আছে তার বাবার বেডে।

রোগীর ছেলে রবিন জানান, দেখেই আমার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। অসুস্থ বাবা কোথায় গেল? তড়িঘড়ি তিনি যান সুপারের ঘরে। জানতে পারেন তার বাবার লাশ মর্গে রয়েছে। গত বৃহস্পতিবারই মারা গিয়েছেন তিনি।

এখানেই প্রশ্ন উঠছে। বৃহস্পতিবার মৃত্যুর পর কেন তার পরিবারকে কিছু জানানো হল না। কেন বারবার বলা হল তিনি স্থিতিশীল। এই ঘটনায় কলকাতা মেডিকেল কলেজের স্বাস্থ্যকর্মীদের সমন্বয়ের অভাবকেই দায়ী করছেন অনেকে। তবে মৃতের ছেলের কথায়, “আমাদের সঙ্গে যা হল এমনটা যেন আর কারো সঙ্গে না হয়।”

সূত্র:সংবাদ প্রতিদিন

অর্থসূচক/এসএস/এমএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ