করোনায় আক্রান্ত ২ সহস্রাধিক ব্যাংকার, মৃত্যু ৩৬
বুধবার, ১২ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

করোনায় আক্রান্ত ২ সহস্রাধিক ব্যাংকার, মৃত্যু ৩৬

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর ২ হাজার ১৭৯ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী। এদের মধ্যে মারা গেছেন ৩৬ জন ব্যাংকার। শাখাগুলোতে জনসাধারণের অবাধ আসা যাওয়া এবং পর্যাপ্ত স্বাস্থ্য সামগ্রী না থাকাকেই এর কারণ হিসেবে দুষছেন ব্যাংকাররা।


ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) এর তথ্য অনুযায়ী, ১৫ জুন পর্যন্ত দেশের ৩৬টি বাণিজ্যিক ব্যাংকের ১ হাজার ৩০০ কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে ১৩ জন মৃত্যুবরণ করেন। পরবর্তীতে এই সংখ্যা আরও বাড়তে থাকে।
তথ্য অনুযায়ী, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর (সোনালি, রুপালি, জনতা এবং অগ্রণী) ৮৭৯ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২৩ জন কর্মকর্তা। এছাড়াও দি সিটি ব্যাংকের ৩ জন, এনসিসি ব্যাংকের চট্টগ্রাম আগ্রাবাদ শাখার ১ জন, উত্তরা ব্যাংকের শান্তিনগর শাখার ১ জন, ন্যাশনাল ব্যাংকের ১ জন, ওয়ান ব্যাংকের মুজিবুর রহমান নামের ১ জন, এক্সিম ব্যাংকের কর্মকর্তা তানভীর আহমেদ (তুষার), ডাচ-বাংলা ব্যাংকের ২ জন ও বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের ১ জন।
অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন দেশের অন্যতম শিল্পপতি এস আলম গ্রুপ ও এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের পরিচালক মোরশেদ আলম এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক শেখ ফরিদ উদ্দিন সোয়াদ।
রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংকের কর্মকর্তাদের মধ্যে কোভিড-১৯-এ আক্রান্তের হার সবচেয়ে বেশি। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সোনালী ব্যাংকের ৪২৮ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হন। এর মধ্যে ৩৫ জন প্রধান কার্যালয়ে কর্মরত ছিলেন। ব্যাংকটির ৬ জন কর্মকর্তা ইতোমধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন। ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সূত্রে এই তথ্য পাওয়া গেছে।

এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত জনতা ব্যাংকের ২০০ জন কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত এবং ৫ জন মৃত্যুবরণ করেছেন বলে জানা গেছে। অগ্রণী ব্যাংকের ১৪০ জন কর্মকর্তা সংক্রমিত এবং ৯ জন মৃত্যুবরণ করেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শামস-উল ইসলাম।

রূপালী ব্যাংকের ১১১ কর্মকর্তা আক্রান্ত এবং ৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে এখন পর্যন্ত। বেসরকারি পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের ২০০ কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন ব্যাংকটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যাংকগুলোতে কোভিড-১৯ এ আক্রান্তর প্রতিদিনই বাড়ছে। এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতেও অনেক ব্যাংক যথাযথভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। নিরাপত্তাহীনতায় চলছে। মানছে না নিয়মকানুন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বালাই নেই। গাদাগাদি করে অফিস করা, লিফটে উঠা, অধিক লোক সমাগমেরর কারণে স্বাস্থ্যঝুঁকি পড়েছেন ব্যাংকাররা। তাই দ্রুত কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরি বলে মত ব্যাংকারদের।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ