কাশ্মীরে সেনা অফিসারকে গুলি করে হত্যার পর সৈনিকের আত্মহত্যা
বুধবার, ১২ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

কাশ্মীরে সেনা অফিসারকে গুলি করে হত্যার পর সৈনিকের আত্মহত্যা

ভারতের জম্মু-কাশ্মীরের কুলগমে এক সেনা অফিসারকে রাইফেল দিয়ে গুলি করে হত্যার পর সশস্ত্র সীমা বল (এসএসবি)এর ওই সৈনিক আত্মহত্যা করেন।

এসএসবি সূত্রে খবর, কুলগমের জেলা আদালত চত্বরে গতকাল সোমবার রাতে এই ঘটনা ঘটে। সেখানে সীমান্ত সুরক্ষা বাহিনী এসএসবি এর অষ্টম ব্যাটেলিয়নের ডিউটি ছিল।

জানা যায়, গতকাল ৬ জুলাই এসএসবি এর এক কনস্টেবল সহকারী সাব-ইনস্পেক্টর পদমর্যাদার অফিসারকে রাইফেল দিয়ে গুলি করে হত্যা করেন। আদালত চত্বরে কোন কারণে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। সেসময় লোডেড রাইফেল থেকে আচমকা গুলি করে কনস্টেবল। পরে কনস্টেবল নিজেই ওই রাইফেল দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

এই ঘটনার পর রাতেই সশস্ত্র সীমা বলের সিনিয়র অফিসারেরা সেখানে পৌঁছেছেন। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। নেপাল ও ভুটান সীমান্ত ছাড়াও জম্মু-কাশ্মীরের কিছু অংশে সীমান্ত সুরক্ষার দায়িত্বে রয়েছে ভারতীয় সশস্ত্র সীমা বল। ঘটনার বিশয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি।

কাশ্মীরে সেনাবাহিনীর মধ্যে এ ধরনের হামলা আগেও বেশ কয়েক বার ঘটেছে। এর আগে ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে কাশ্মীরের গান্ডেরবালে পাঁচ সহকর্মীকে খুন করে আত্মহত্যা করেছিলেন এক ভারতীয় সেনা। ভোররাতে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে পাঁচ ঘুমন্ত সহকর্মীকে হত্যা করে পরে নিজেও আত্মহত্যা

দিল্লিতে ইনস্টিটিউট অব পিস অ্যান্ড কনফ্লিক্ট স্টাডিজের প্রধান, অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল দীপঙ্কর ব্যানার্জির মতে এর পেছনে অনেকগুলো কারণই থাকতে পারে।

কাশ্মীরে মোতায়েন সেনারা প্রতিনিয়ত জঙ্গি দমনের কাজে নিয়োজিত থাকেন। যে কারণে তাদের সাঙ্ঘাতিক মানসিক চাপের মধ্যে থাকতে হয়। সেই প্রবল মনস্তাত্ত্বিক ও শারীরিক চাপে তারা অনেক সময় ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন!

তবে কুলগমে কী কারণে এমন ঘটনা ঘটল, তা তদন্তের পরেই জানা যাবে। আত্মঘাতী সেনা মানসিক চাপের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিলেন কি না, তা জানা যায়নি। এ বিষয়ে এসএসবির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তদন্ত শুরু করেছেন।

সূত্র: এই সময়

অর্থসূচক/এসএস/এমএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ