'পূর্ণিমার রাতেও বিএনপি অমাবস্যার অন্ধকার দেখতে পায়'
বুধবার, ১২ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘পূর্ণিমার রাতেও বিএনপি অমাবস্যার অন্ধকার দেখতে পায়’

বিভাজন ও বৈরিতার রাজনীতি পরিহার করে করোনা প্রতিরোধের লড়াইয়ে সহযোগিতা করতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, তাদের (বিএনপি নেতা) কথা শুনে মনে হয়, পূর্ণিমার রাতেও বিএনপি অমাবস্যার অন্ধকার দেখতে পায়।

আজ সোমবার (০৬ জুলাই) নিজের সরকারি বাসভবন থেকে নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি দুর্নীতিতে পরপর পাঁচবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। লুটপাটের কারণেই নির্বাচন ও রাজনীতিতে জনগণের কাছে তারা প্রত্যাখ্যাত। তাদের মুখে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা হাস্যকর শোনায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দুর্নীতিবিরোধী অবস্থান এবং তার ব্যক্তিগত সততা দেশ-বিদেশে সমাদৃত ও প্রশংসিত জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, দুর্নীতিবাজ যেই হোক, শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার তার ব্যাপারে শূন্য সহিষ্ণুতা নীতিতে অটল।

‘করোনা সংকটে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন না করে বিএনপি তাদের চিরাচরিত নালিশের রাজনীতি আঁকড়ে ধরে আছে এবং এ করোনাকালেও তারা আজগুবি তথ্য দিয়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করছে। তাদের কথা শুনে মনে হয়, পূর্নিমার রাতেও বিএনপি অমাবশ্যার অন্ধকার দেখতে পায়।’

যশোর ও বগুড়া উপনির্বাচন প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা সম্পূর্ণ নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ার। সরকারের এতে কোনো হাত নেই। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে করোনাকালেও বিশ্বের অনেক দেশেই জাতীয় নির্বাচন ও স্থানীয় সরকার নির্বাচন হচ্ছে।

বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হার বিশ্বের যেকোনো দেশের তুলনায় কম বলে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বৈশ্বিক করোনা সংকটের শুরু থেকেই সরকার সবাইকে নিয়ে সমন্বিতভাবে কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। এখন প্রায় ৭৩টি কেন্দ্রে করোনা পরীক্ষা হচ্ছে। দিন দিন সক্ষমতা বাড়ছে। কেন্দ্র থেকে উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত করোনা পরীক্ষার সুযোগ বৃদ্ধি করা হয়েছে।

তিনি বলেনে, সরকার যদি অদক্ষ ও অযোগ্য হতো তাহলে এসময় এমন ব্যবস্থা নিতে পারত? ৭২ হাজার ৬২৫ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়েছে। সুস্থতা হার ৪৪ দশমিক ৭২ শতাংশ। মৃত্যুর হার শতকরা ১ দশমিক ২৬। মৃত্যুর হার বিশ্বের যেকোনো দেশের তুলনায় কম। ইউরোপ-আমেরিকা এমনকি প্রতিবেশী দেশ ভারত, পাকিস্তানের তুলনায় এখানে মৃত্যুর হার অনেক কম।

যদিও সরকার একটি মৃত্যুও প্রত্যাশা করে না। কিন্তু বিএনপি শুধু মৃত্যু সংখ্যা দেখে। অথচ এতো সংখ্যক লোক সুস্থ হচ্ছে তা তাদের চোখে পড়ে না। তাদের দৃষ্টিভঙ্গি যে নেতিবাচক এটাই তার প্রমাণ, যোগ করেন ওবায়দুল কাদের।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের অনেক দেশই নিজেদের সামর্থ্য দিয়ে করোনা মোকাবিলায় হিমশিম খাচ্ছে। বহু দেশ নানা সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও তাদের স্বাস্থ্য কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সরকার সীমাবদ্ধতা নিয়ে করোনা সংকট মোকাবিলায় সর্বাত্মক প্রয়াস অব্যাহত রেখেছে। দিনদিন শেখ হাসিনা সরকার সুরক্ষা সামগ্রী বাড়াচ্ছে। ভেন্টিলেশন ব্যবস্থা ও ডাক্তার সংখ্যা বৃদ্ধি করছে। সরকারের সমন্বিত দক্ষতার কারণে এসব করা সম্ভব হচ্ছে। অথচ বিএনপির কার্যক্রম শুধু বিবৃতির মধ্যেই সীমাবদ্ধ।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ