১৩ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার সুমনের বক্তব্য অসংলগ্ন: তদন্ত কমিটি
সোমবার, ১০ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

১৩ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার সুমনের বক্তব্য অসংলগ্ন: তদন্ত কমিটি

বুড়িগঙ্গা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চ থেকে ১৩ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার হওয়া সুমন বেপারীর বক্তব্যকে অসংলগ্ন বলে মনে করছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটি।

তদন্ত-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সুমন ইঞ্জিনরুমে আটকা পড়েছিলেন বলে দাবি করেছেন। একবার বলেছেন, তিনি লঞ্চে ঘুমিয়ে ছিলেন। ডুবে যাওয়ার বিষয়টি তাঁর মনে পড়ছে না। উদ্ধারের পর সবকিছু জানতে পারেন। ভেতরে অন্য কাউকে দেখেননি। পরক্ষণেই আবার বলেছেন, ভেতরে লাশ দেখা গেছে। পুরো রুমটা অন্ধকার ছিল। তাঁর জ্ঞান ছিল না। ডুবে যাওয়ার সময় তাঁর পেটেও পানি চলে যায়। তাঁর বক্তব্য অসংলগ্ন মনে হয়েছে। তাঁর আরও বক্তব্য নেওয়া হবে। তিনি কিছুটা অসুস্থ। সুস্থ হলে প্রয়োজনে সরাসরি কথা বলা হবে।

তদন্ত কমিটির প্রধান নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব রফিকুল ইসলাম উদ্ধার হওয়া সুমনের বক্তব্য নেওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে সাংবাদিকদের বলেন, ১৩ ঘণ্টা ধরে ডুবে যাওয়া লঞ্চের ভেতরে তিনি কীভাবে থাকলেন, তাঁর বক্তব্যে তা স্পষ্ট হয়নি। সংশ্লিষ্ট অনেকের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলে তাঁর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এদিকে উদ্ধারের পর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বাড়িতে চলে গেছেন সুমন। সেখান থেকেই তদন্ত কমিটির সঙ্গে মোবাইল ফোনে প্রায় ৩০ মিনিট কথা বলেন সুমন, যা তদন্ত কমিটি রেকর্ড রাখে বলে জানায়।

তদন্ত কমিটির কাছে ঘুমিয়ে থাকার কথা বললেও উদ্ধারের পর সুমন গণমাধ্যমকে বলেছিলেন, প্রথম দিকে পেটে একটু পানি প্রবেশ করলেও বাকি পুরো সময়টা নিরাপদে ছিলেন তিনি। তিনি আরও বলেছিলেন, ‘আমি তো মনে করেছি ১০ মিনিট হয় আটকে আছি! পানির ওপর উঠে এসে শুনি ১৩ ঘণ্টা হয়েছে।’

লঞ্চডুবিতে প্রাণহানির ঘটনায় এখন পর্যন্ত অভিযুক্তদের কেউ গ্রেপ্তার হননি। যদিও ওই রাতেই এমভি ময়ূর-২ লঞ্চের মালিকসহ সাতজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত পাঁচ-ছয়জনের বিরুদ্ধে অবহেলাজনিত মৃত্যু ঘটানোর অভিযোগ এনে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় মামলা হয়।

গত ২৯ জুন সকালে চাঁদপুরগামী ‘এমভি ময়ূর-২’ লঞ্চের ধাক্কায় শ্যামবাজার এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে ডুবে যায় মুন্সীগঞ্জের কাঠপট্টি থেকে অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ঢাকার সদরঘাটের দিকে আসা যাত্রীবাহী লঞ্চ ‘এমভি মর্নিং বার্ড’। ওই দিন ৩২ জনের লাশ উদ্ধার হয় এবং পরদিন আরও দুজনের লাশ পাওয়া যায়।

অর্থসূচক/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ