'হাসপাতালটিতে কেবল চুরি নয়, পুকুরচুরি হয়েছে'
বুধবার, ১২ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘হাসপাতালটিতে কেবল চুরি নয়, পুকুরচুরি হয়েছে’

নারায়ণগঞ্জের ৩০০ শয্যা হাসপাতালে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তুলেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম সেলিম ওসমান।

তিনি বলেন, আমি দেখিয়ে দেবো অনিয়মের সঙ্গে কারা জড়িত। নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসককে অডিট করতে হবে। এটা চুরি না, এটা পুকুরচুরি হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) শহরের খানপুরে অবস্থিত হাসপাতালটিতে ১০ শয্যার আইসিইউ ইউনিটের উদ্বোধন করে তিনি এসব কথা বলেন।

সেলিম ওসমান অভিযোগ করেন, এ হাসপাতালের একজন টাইপিস্ট থেকে তত্ত্বাবধায়কের পিএস হয়ে গেলেন। তার জন্য কোন তত্ত্বাবধায়কই স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারতো না। আমি তদন্ত চেয়েছিলাম। কিন্তু তাকে বদলি করে দেওয়া হয়েছে।

‘কেন তাকে রাজশাহী পাঠিয়ে দেওয়া হলো? কেন তার বিচার নারায়ণগঞ্জ শহরে হবে না? যার নাকি আমার জানা মতে, নারায়ণগঞ্জে ৩টি বাড়ি আছে, বিভিন্ন ক্লিনিকে শেয়ার রয়েছে।’

সেলিম ওসমান আরও বলেন, আমার জানামতে হাসপাতালে ১০০ টাকার সরঞ্জাম ১৫০০ টাকায় সরবরাহ করা হয়েছে, রোগীদের খাবারে অনিয়ম হয়েছে। একটি গভীর নলকূপ বসানোর পরও কেন আরেকটি গভীর নলকূপ বসানো হলো? কারণ ওইটার মধ্যে ঠিকাদারী আছে।

এ সময় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, চুরি যারা করেছেন তাদের প্রত্যেকের নাম তদন্তের পর প্রকাশ করা হবে।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন গণমাধ্যমকে বলেন, এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। আর হাসপাতাল পরিচালনা কমিটি তদন্ত করে পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। যদি আমাদের কাছে লিখিত কোন অভিযোগ দেওয়া হয় তাহলে আমরাও সেটি ডিজি হেলথের কাছে পাঠিয়ে দেবো। কিংবা হাসপাতালের সুপারকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলব। কারণ হাসপাতালটি আমাদের অধীনে না।

প্রসঙ্গত ৩০০ শয্যা হাসপাতাল সুপারের ব্যক্তিগত পিএ সিদ্দিকুর রহমানকে গত ২৪ জুন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক আদেশে বদলি করে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের অধীনে ন্যস্ত করা হয়।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ