করোনায় স্পেয়ার পার্টস খাতে ৬ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি
বৃহস্পতিবার, ২রা জুলাই, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

করোনায় স্পেয়ার পার্টস খাতে ৬ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি

করোনা ভাইরাসের কারণে প্রতি মাসে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে স্পেয়ার পার্টস খাতে। গত তিন মাসে সব মিলিয়ে ৬ হাজার কোটি টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অটোমোবাইলস এসেম্বলারস এন্ড ম্যানু অ্যাসোসিয়েশন (বিএএএমএ)-র সাবেক সভাপতি এবং রানার গ্রুপের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান খান।

আজ মঙ্গলবার (২৩ জুন) এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

হাফিজুর রহমান খান বলেন, আমাদের ক্ষতি দুই ধরনের। প্রথমটি রেভিনিউ লস এবং অন্যটি ক্যাপিটাল লস। শুধুমাত্র ক্যাপিটাল লসের কারণেই প্রতিমাসে দুই হাজার কোটি টাকা গুনতে হচ্ছে পুরো খাতকে। তবে খুব দ্রুতই এই ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারবেন বলে আশা করছেন তিনি।

বিএএএমএ-র সাবেক সভাপতি আরো বলেন, করোনার কারণে মোটরসাইকেল বিক্রির সম্ভাবনা বেড়েছে। মানুষ এখন ব্যক্তিগত পরিবহন ব্যবহার করতে চায়। সেক্ষেত্রে মোটরসাইকেলকে উপযোগী বাহন মনে করছেন জনগণ। তাই খাতটিকে পূর্বের জায়গায় ফেরাতে খুব বেশি সময় লাগবে না বলে মনে করেন তিনি।

এছাড়াও, বিনা শুল্কে একবছর মোটর পার্টস আমদানির আবেদন করেছে বিএএএমএ। এতে করে দেশের জনগণ সহ সেক্টরের সবাই উপকৃত হবে বলে আশাবাদী সংগঠনটি। করোনা ভাইরাসের কারণে নতুন গাড়ি ক্রয়ের সক্ষমতা কমে যাওয়ায় পুরাতন গাড়ির পার্টস আমদানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা চায় তারা।

বিএএএমএ-র সভাপতি আব্দুল মতলব বলেন, করোনা সংকট কেটে গেলে খুব দ্রুতই আমরা আগের অবস্থানে ফিরে আসবো। কেউ চাকরি হারাবে না। তবে খাতটিকে রপ্তানিমুখী করতে হলে ইলেকট্রিক কার তৈরিতে বিশেষ নজর দিতে হবে। কারণ ইলেকট্রিক কার ভবিষ্যৎ প্রজন্মের নতুন চাহিদা হয়ে উঠবে। আর বিশ্বের মধ্যে খুব বেশি দেশ এই কার তৈরি করে না। এ বিষয়ে সরকারের সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলো কি পরিমান লস করবে এমন প্রশ্নের জবাবে সংগঠনটির ভাইস প্রেসিডেন্ট তাসকিন আহমেদ বলেন, আমরা আশা করছি করোনা সংকট খুব বেশি দীর্ঘায়িত হবে না। সংকট কেটে যাওয়ার দুই থেকে তিন প্রান্তিকের মধ্যেই পুনরায় লাভে ফিরবে স্পেয়ার পার্টস খাতের কোম্পানিগুলো।

অর্থসূচক/জেডএ/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ