রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ
মঙ্গলবার, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » শিক্ষা

রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

rabi-logoরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক আবদুস সালামের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন বিভাগের ৪৩ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিভাগের সভাপতি, বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ অভিযোগ কমিটি এবং মানবাধিকার সংগঠন মহিলা পরিষদের বিশ্ববিদ্যালয় শাখায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

অভিযোগসূত্রে জানা যায়, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ৪৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা গত ১৫ এপ্রিল কক্সবাজার ও বান্দরবনে শিক্ষা সফরে গিয়েছিলেন। তাদের সাথে ছিলেন বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক আবদুস সালাম। সফরকালে তিনি কয়েকজন ছাত্রীর সাথে যৌন হয়রানিমূলক আচরণ করেছেন বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে। বিষয়টি অন্য শিক্ষকদের জানানো হলে অভিযুক্ত শিক্ষক আবদুস সালাম ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ব্যাচের শিক্ষার্থীদের ব্যবহারিক নম্বর কেটে নেওয়ার হুমকি দেন। শিক্ষা সফর শেষে ক্যাম্পাসে এসে গত ২৮ এপ্রিল অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বিভাগের সভাপতির কাছে লিখিত অভিযোগ দেন শিক্ষার্থীরা। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে বিভাগের পক্ষ থেকে কোনো পদেক্ষপ না নেওয়ায় পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ কমিটি এবং মানবাধিকার সংগঠন মহিলা পরিষদের বিশ্ববিদ্যালয় শাখা বরবার একই অভিযোগন দেন শিক্ষার্থীরা। বিষয়টি খতিয়ে দেখছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর এএসএম শফীকুর রহমান বলেন, বিষয়টি সামান্য ভুল বুঝাবুঝি থেকে সৃষ্টি হয়েছে। অভিযোগটি যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

অভিযুক্ত শিক্ষক প্রফেসর আবদুস সালাম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমার সাথে শিক্ষাসফরে আমার স্ত্রী গিয়েছিলেন। এ ধরনের কোনো ঘটনাই ঘটেনি। কোনো মহল আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে।’

এ ব্যাপারে অভিযোগকারী শিক্ষার্থীদের কয়েকজন বলেন, ‘অভিযোগ থেকে জেনে নেন। আমরা এ ব্যাপারে কিছু বলতে পারবো। কিছু বললে আমাদের ক্ষতি হয়ে যাবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন হয়রানি ও নিপীড়ন নিরোধ অভিযোগ কমিটির সভাপতি প্রফেসর মাহবুবা কানিজ কেয়া বলেন, ‘কমিটির নীতিমালা অনুযায়ী ঘটনা তদন্তের আগে এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করা যাবে না। আমরা তদন্ত শেষ হলে এ ব্যাপারে কথা বলবো।

এমআই/সাকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ