খুলনায় বেড়েছে সবজি ও ভোজ্য তেলের দাম
বুধবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পণ্যবাজার

খুলনায় বেড়েছে সবজি ও ভোজ্যতেলের দাম

সবজি ও ভোজ্যতেল

সবজি ও ভোজ্যতেল

খুলনায় সবজির পাশাপাশি বেড়েছে ভোজ্যতেলের দামও। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে সবজির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে আরেক দফা। স্থান ভেদে ভোজ্য তেলের দামের সাথে কোনো সামঞ্জস্য নেই। ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের ভোজ্যতেলের দামের সাথে খুচরা বাজারে দামের কোনো মিল নেই। কিছু ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটই দাম বৃদ্ধির প্রধান কারণ বলে একাধিক ক্রেতা মন্তব্য করেছেন।

রোববার নগরীর রূপসা নতুন বাজার ও তারের পুকুর পাড় বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ঢেঁড়স ২৫ টাকা, পটল ৩৫ টাকা, উচ্ছে ৩৬ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা, বরবটি ৩৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া, টমেটো ৩২ টাকা, কাঁকরোল ৬০ টাকা, সজিনা ৫০ টাকা, ঝিঙে ৩০ টাকা, বেগুন ৩৬ টাকা, খুশি ৩০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ২০ টাকা, লাউ ২০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১০০ টাকা, কচুর লতি ৪০ টাকা, খিরাই ২৮ টাকা, চাল কুমড়া ৩২ টাকা, পুঁই শাক ২০ টাকা, লাল শাক ২০ টাকা, আলু ২০ টাকা, পেঁয়াজ দেশি ৩০ টাকা, ভারতীয় পেঁয়াজ ২৪ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া সয়াবিন তেল লিটার প্রতি ১১৪ টাকা, সয়াবিন লুজ ১০৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

অপরদিকে গত সপ্তাহে এসব পণ্যের দর ছিল- ঢেঁড়স ২৪ টাকা, পটল ৩৫ টাকা, উচ্ছে ৪০ টাকা, পেঁপে ২৪ টাকা, বরবটি ৩৬ টাকা, টমেটো ৪০ টাকা, কাঁকরোল ৬০ টাকা, সজিনা ৪০ টাকা, ঝিঙে ৩৫ টাকা, বেগুন ৪০ টাকা, , মিষ্টি কুমড়া ২০ টাকা, লাউ ২০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১০০ টাকা, কচুর লতি ৪০ টাকা, খিরই ২৮ টাকা, চাল কুমড়া ৩২ টাকা, পুঁই শাক ২০ টাকা, লাল শাক ২০ টাকা, আলু ১৬ টাকা, পেঁয়াজ দেশী ২৫ টাকা, ভারতীয় পেঁয়াজ ২৪ টাকা দরে বিক্রি হয়।
এ ছাড়া সয়াবিন তেল লিটার প্রতি ১১০ টাকা, সয়াবিন লুজ ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়।

এদিকে, নগরীর বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে সয়াবিন তেল লিটারপ্রতি ১১৪ টাকা, সয়াবিন লুজ ১০৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও খুচরা বাজারে সয়াবিন লুজ তেল ১১২ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
নগরীর মীম ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের বিক্রেতা আব্দুল কাদের জানান, ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের জিনিসের সাথে খুচরা বাজারে জিনিসের দামের অনেক তফাৎ রয়েছে।

এ বিষয়ে খুলনার জেলা প্রশাসক আনিস মাহামুদ বলেন, হঠাৎ পেঁয়াজ, আলু ও ভোজ্য তেলের দাম বৃদ্ধির বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে। বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা আরও জোরদার করা হচ্ছে। তিনি জানান, আগামি ১৮ মে বাজার মনিটরিং কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছে।

এআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ