একদিনের জন্যও পণ্যের দাম বাড়বে না

তোফায়েল আহমেদ, toahayel ahmed
তোফায়েল আহমেদ
তোফায়েল আহমেদ, toahayel ahmed
তোফায়েল আহমেদ

২০১৪-১৫ অর্থবছরের বাজেটের পর রমজানসহ আগামি অর্থবছরের যে কোনো সময়ে একদিনের জন্যও জিনিস পত্রের দাম বাড়বে না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। সেই সাথে শিল্প ও বিনিয়োগবান্ধব বাজেট প্রণয়ন হবে বলে জানান তিনি।
শনিবার রাতে রাজধানীর রূপসী বাংলা হোটেলে বেসরকারি টেলিভিশন এনিটিভি আয়োজিত ‘কেমন বাজেট চাই ২০১৪-১৫’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে এ কথা জানান তিনি।
বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আগামি বাজেটে মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটবে। আমরা ইতিমধ্যে আমদানিকারক ও ভোক্তাদের সাথে বৈঠক করেছি। আগামি রমজানে একদিনের জন্যও কোন জিনিস পত্রের দাম বাড়বে না। সম্পূর্ণ বছর জুড়েও সব পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রনে রাখা হবে।
তিনি আরও বলেন, আগামি বাজেট বাস্তব সম্মত, সুন্দর ও গতিশীল হবে। বাজেটে রপ্তানি বাড়ানোর ওপর অনেক বেশি গুরুত্ব দেওয়া হবে। বাজার ও পণ্যের বহুমুখী করণের মাধ্যমে কৃষি খাতকে এগিয়ে নেওয়ার ওপর বেশি গুরুত্ব দেওয়া হবে।
বিনিয়োগ কমে যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দেশে ব্যক্তি খাতে বিনিয়োগ অনেক কমে গেছে। এটা দেশের অর্থনীতি ও উন্নয়নের জন্য অশনি সংকেত। তাই এবারের বাজেটে বিশেষ বিশেষ খাতে কর অবকাশ (ট্যাক্স হলিডে) প্রদান করা হবে।
তিনি আরও বলেন, এবারের অর্থবছরে আমাদের ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা নিতে হবে। তাই পঞ্চম পঞ্চবার্ষিকীর কম বাস্তবায়িত বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিতে হবে।
বিদ্যুৎ খাতের বিষয়ে তিনি বলেন, গত পাঁচ বছরে সাত হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছি। এবারের বাজেটেও এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে বরাদ্দ দেওয়া হবে।
এছাড়া শিল্প উন্নয়নের লক্ষ্যে জাহাজ শিল্প ও ইস্পাত শিল্পে বিশেষ সুবিধা প্রদান করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
সাবেক বাণিজ্য মন্ত্রী জিএম কাদের বলেন, জিনিস পত্রের দাম সহনীয় পর্যায় থাকবে। কোল্ড স্টোরেজের ওপর বিশেষ প্রণোদনা দিলে কৃষকরা সঠিক দাম পবে। তাদের কোনো উৎপাদিত পণ্য যাবেনা।
কৃষকদের বিশেষ সুবিধা প্রদানের দাবি করে তিনি বলেন, উত্তরবঙ্গে গ্যাস সংযোগ দিলে দিলে দেশ এগিয়ে যাবে। সাথে সারাদেশে কৃষকরা যাতে সহজভাবে গ্যাস ও বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে পারে এ বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারলে কৃষিখাতে কোনো ধরনের সংকট থাকবেনা।
এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরাম হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ওসমান ফারুক, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এবি মির্জা আজিজুল ইসলাম, সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. মোস্তাফিজুর রহমানসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠন ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্ধ।

এইউ নয়ন