বাজেটের লক্ষ্যমাত্রা কমানো উচিত: মির্জা আজিজ

Mirza_aziz
তত্ত্বাবাধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. হোসেন জিল্লুর রহমান
মির্জা আজিজুলল ইসলাম
‘কেমন বাজেট চাই ২০১৪-১৫’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছেন তত্ত্বাবাধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা মির্জা আজিজুল ইসলাম

আসন্ন অর্থ বছরের বাজেটের সম্ভাব্য আকার হতে পারে আড়াই লাখ কোটি টাকা। বাজেটের এ আকারকে উচ্চাভিলাষী ও বাস্তবায়নযোগ্য নয় বলে মনে করেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা এবি মির্জা আজিজুল ইসলাম। তিনি বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধির আলোকে বাজেটে লক্ষ্যমাত্রা আরও কমানো উচিত।

শনিবার রাতে রাজধানীর রুপসী বাংলা হোটেলে বেসরকারি টেলিভিশন এনিটিভি আয়োজিত ‘কেমন বাজেট চাই ২০১৪-১৫’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

ড. মির্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, গত বছরের বাজেটের বিভিন্ন দিক বাস্তবায়িত না হলেও এবার আরেকটি বিশাল বাজেটের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় অনেক কম আদায় হয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রায় সহজ শর্তে ঋণ ও আর্থিক সাহায্যের পরিমাণ অনেক কমে যাওয়াসহ ব্যাংকিং খাত থেকে সরকারের ঋণ নেওয়ার পরিমাণ বেড়ে গেছে। এসময়ে এ বিষয়গুলোর সমাধান না করে ২ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকার উচ্চবিলাসী লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়।

বাজেটের আকার বাস্তবসম্মত হওয়া উচিত উল্লেখ করে মির্জা আজিজ বলেন, বাজেটের আকার বড় হওয়া কোন ক্রেডিটের বিষয় নয়। বাংলাদেশের বাস্তবতায় ২ লাখ ৩৪ কোটি টাকার বেশি বাজেট বাস্তবায়ন যোগ্য নয়। তাই এ বাজেট উচ্চবিলাসী না করে লক্ষ্যমাত্রা থেকে ১৫ হাজার কোটি টাকা কমানো দরকার।

এসময় তিনি বলেন, গত বছরের বাজেটে সরকারি ব্যয় জাতীয় আয়ের তুলনায় অনেক কম। এটি হওয়া উচিত নয়। এরফলে দেশের অবকাঠামো উন্নয়ন ব্যহত নয়। আর এগিয়ে আসে না নতুন বিনিয়োগকারীরা।

এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরাম হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত রয়েছে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, বাণিজ্য মন্ত্রী তোফায়েল আহমদ, সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ওসমান ফারুক, সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী জিএম কাদেরসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠন ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের নেতৃবৃন্ধ।

এইউ নয়ন