নিত্যপণ্যের দাম কমেছে, বেড়েছে সবজির
সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

নিত্যপণ্যের দাম কমেছে, বেড়েছে সবজির

ঈদের আগে অস্বাভাবিকভাবে দাম বাড়া পেঁয়াজ- রসুন, আদা, মসুর ডাল, চিনি, বয়লার মুরগিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কমেছে। ঈদের আগে রোজার মধ্যে সবকটি পণ্যের দাম বেড়েছিল। তবে সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে সবজির দাম।

আজ শুক্রবার রাজধানীর মিরপুরের কয়েকটি বাজারে খোঁজখবর নিয়ে এবং ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে এসব তথ্য জানা যায়।

ঈদের পর সব থেকে বেশি কমেছে ব্রয়লার মুরগির দাম। ঈদের আগে যে মুরগির দাম ১৮০ থেকে ১৯০ টাকায় উঠেছিল তা বর্তমানে বাজারে বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৩৫ টাকায়। দাম কমার তালিকায় এর পরের স্থানেই রয়েছে দেশি ও আমদানি করা পেঁয়াজ। ঈদের আগে রান্নাঘরের এই অতি প্রয়োজনীয় পণ্যটির দাম বেড়ে ৬০ টাকার উপরে উঠেছিল বর্তমানে তা ৪০ থেকে ৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

পেঁয়াজের পাশাপাশি দেশি ও আমদানি উভয় ধরনের রসুনের দাম কমেছে। ঈদের আগে ১২০ টাকায় বিক্রি হওয়া দেশি রসুন বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ১০০ টাকায়। আর ১৫০ থেকে ১৭০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া আমদানি করা রসুনের দাম কমে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা হয়েছে। এছাড়া ঈদের পরে কমেছে আদা চিনি ও মসুর ডালের দাম। বর্তমানে আমদানি করা আদার কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা, যা আগে ছিল ১৬০ থেকে ২০০ টাকা। আর দেশি আদা ১৬০ থেকে ২০০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে, যা আগে ছিল ২০০ থেকে ২২০ টাকা।

ঈদের আগে ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া বড় দানার মসুর ডাল এখন ৭৫ থেকে ৮৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে। চিনি ঈদের আগের তুলনায় ৫ টাকা কমে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে, যা আগে ছিল ৬০ থেকে ৭০ টাকা। এদিকে ঈদের পর রাজধানীর বাজারে বেড়েছে শাক-সবজির দাম। বেশির ভাগ সবজি এখন ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আর কয়েকটি সবজির কেজি ৭০ থেকে ৮০ টাকা।

শাক-সবজির দাম বাড়ার বিষয়ে ব্যবসায়ীরা বলছেন, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে সবজির খেত ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় দাম বেড়েছে। কারণ, সরবরাহ কমেছে। ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতের আগে বেশির ভাগ সবজি ৪০ থেকে ৬০ টাকা কেজির মধ্যে ছিল বলে দাবি তাঁদের।

মিরপুরের কয়েকটি বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বাজারে বেগুন, ঝিঙে, চিচিঙ্গা, কাঁকরোল ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। প্রতিটি লাউ বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়। সেরা মানের করলা ও বরবটির কেজি ৮০ টাকার আশপাশে।

সবজির দাম বাড়ার বিষয়ে শেওড়াপাড়ার ব্যবসায়ী রহমান বলেন, সাধারণত ঈদের পর সবজির দাম কিছুটা বাড়ে। কিন্তু এবার কোন সবজির দাম বাড়েনি। আসলে এবার যে ঈদ হয়েছে তা খুব একটা বোঝা যায়নি। করোনা ভাইরাসের কারণে এবারের ঈদ বেশিরভাগ মানুষেরই সাধারণ দিনের মতো কেটেছে। সে কারণে ঈদের আগে বাজার যেমন ছিল এখনও বাজার তেমনি রয়েছে।

অর্থসূচক/এমআরএম/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ