তাবলিগ জামাত,কালো তালিকাভুক্ত, ভারত
বৃহস্পতিবার, ২রা জুলাই, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

তাবলিগ জামাতের ২৫৫০ সদস্যকে ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করল ভারত

তাবলিগ জামায়াতের কাজকর্মে জড়িত থাকা ২ হাজার ৫৫০ বিদেশি নাগরিককে ১০ বছরের জন্য ভারত ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। দেশটির সরকারি সূত্রকে উদ্ধৃত করে আজ (৪ জুন) নবভারত টাইমস ওই তথ্য জানিয়েছে।

বিদেশি নাগরিকরা টুরিস্ট ভিসায় ভারতে এসে গত মার্চে দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজে তাবলীগের কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ইতিমধ্যেই ওই বিদেশী নাগরিকদের ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করা হয়েছে।

এর আগে দিল্লি পুলিশ ওই বিদেশি নাগরিকদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেছে। দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ জানিয়েছে, অভিযুক্তরা সকলেই ভিসা আইন লঙ্ঘন করেছে। সেজন্য সরকার ভিসা বাতিল করে সমস্ত অভিযুক্তকে ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করা হয়েছে।

এছাড়া বিদেশি তাবলিগ সদস্যদের বিরুদ্ধে মহামারি আইন লঙ্ঘনসহ বিভিন্ন গুরুতর ধারায় মামলা দায়ের করে তাদের অভিযুক্ত করা হয়েছে। চার্জশিটে অভিযোগ করা হয়েছে যে, তারা দেশে মহামারি ছড়িয়ে দেওয়ার মতো অপকর্ম করেছে, যা বহু নিরীহ মানুষকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। তাদেরকে ভিসা বিধি লঙ্ঘন, মহামারি আইন লঙ্ঘন, ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন লঙ্ঘন, বিপজ্জনক রোগের সংক্রমণের ক্ষেত্রে অবহেলার অভিযোগসহ কোয়ারেন্টাইন বিধি অনুসরণ না করার অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

ভারতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যে গত মার্চে তাবলিগি জামায়াতের বিপুলসংখ্যক লোক দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজে জড়ো হয়েছিলেন। এ সময় তাদের কারণে, করোনা ভাইরাস অন্যদের মধ্যেও প্রচুর পরিমাণে ছড়িয়ে পড়েছিল বলে অভিযোগ উঠে।

এছাড়া ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত এপ্রিল মাসে তাবলিগ জামায়াতের ৯৬০ বিদেশি নাগরিককে ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করেছিল। এছাড়া তাদের ভিসাও বাতিল করা হয়েছিল। তখন দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দিল্লি পুলিশ এবং অন্যান্য রাজ্যের পুলিশকে তাদের নিজ এলাকায় থাকা বিদেশি নাগরিকদের বিরুদ্ধে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন এবং বিদেশি নাগরিক আইনের অধীনে ব্যবস্থা নিতে বলেছিল।

অর্থসূচক/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ