দুইভাবে দিন গুনছেন 'নিষিদ্ধ সাকিব'
শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

দুইভাবে দিন গুনছেন ‘নিষিদ্ধ সাকিব’

গত বছর ২৯ অক্টোবর ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন সাকিব আল হাসান। এরপর পার হয়ে গেছে প্রায় ৭ মাস। শাস্তি উঠে যাওয়া সময় ঘনিয়ে আসছে বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডারের। এমন সময় দুইভাবে শেষদিন গুলি গুনছেন সাকিব। কারণ নিষেধাজ্ঞার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে করোনা ভাইরাসের কঠিন পরীক্ষাও।

দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে মাঠের খেলা বন্ধ। ফের কবে খেলা মাঠে ফিরবে তাঁর কোনো নিশ্চয়তা নেই। এই ভাইরাসের কারণে পিছিয়ে যেতে পারে আসন্ন বিশ্বকাপও। যা বাংলাদেশের জন্য বড় ইতিবাচক একটি দিক। বিশ্বকাপ পেছালেই সাকিবকে আইসিসির এই টুর্নামেন্টে পাবে বাংলাদেশ। তবে যে টুর্নামেন্ট বা যে দিনই হোক বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মাঠে ফিরতেই মরিয়া হয়ে আছেন।

সাকিব বলেন, ‘আমি আসলে দুইভাবে দিন গুনছি। প্রথমত, করোনা পরিস্থিতি কবে স্বাভাবিক হবে আর কবে আমার নিষেধাজ্ঞা শেষ হবে। আমি কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। যদিও এখন কোথাও কোন ক্রিকেট হচ্ছে না। আমি জানি, যদি আগামীকাল ক্রিকেট শুরুও হয়, তাও আমি খেলতে পারব না। আপনাকে যখন কোনকিছু থেকে বিরত থাকতে বলা হয়, তখন অন্য কেউ এ ব্যাপারে কথা বলুক বা না বলুক, আপনার ভেতরে ঠিকই বিষয়টা চলতে থাকে। আপনি নিজেই বলতে পারেন আপনার ভেতরে আসলে কী চলছে।’

সাকিবের মাঠে ফিরতে আরও ৫ মাস দেরি হলেও এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মাঝে অনুশীলন শুরু করেছে ইংল্যান্ড। পহেলা জুন থেকে শ্রীলংকাও একই পথে হাঁটার কথা ভাবছে। এছাড়া ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির পক্ষ থেকেও দেওয়া হয়েছে নানান নির্দেশনা।

এসব নির্দেশনার ব্যাপারে সন্দিহান সাকিব। তাঁর মতে, আমরা এখন শুনতে পাচ্ছি যে, করোনা ভাইরাস ১২ ফুট দূরেও সংক্রমিত করতে পারে, তিন বা ছয় ফুট নয়। তার মানে দুজন ব্যাটসম্যান ওভার শেষে কথা বলতে পারবে না? তারা নিজেদের প্রান্তেই দাঁড়িয়ে থাকবে? মাঠে কোন দর্শক থাকবে না? উইকেটরক্ষকরা আরও দূরে গিয়ে দাঁড়াবে? ক্লোজ ইন ফিল্ডারদের ক্ষেত্রেই বা কী হবে? আমার মনে হয় না, পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়ার আগে আইসিসি কোন ঝুঁকি নেবে। বিষয়টা যাইহোক, জীবন সবার আগে। আমি নিশ্চিত আইসিসিও নিরাপত্তার কথাই আগে দেখবে।

অর্থসূচক/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ