করোনাতেই মারা গেছেন আ.লীগের সাবেক এমপি পুতুল
সোমবার, ১লা জুন, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page
ছেলে ও তার স্ত্রী আক্রান্ত

করোনাতেই মারা গেছেন আ.লীগের সাবেক এমপি পুতুল

নভেল  করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) উপসর্গ নিয়ে গত বৃহস্পতিবার (২১ মে) মারা গিয়েছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ও বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক মহিলা বিষয়ক সম্পাদক কামরুন্নাহার পুতুল। সে দিন রাত সোয়া ১১টার দিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে তিনি মারা যান।

তবে তখন পর্যন্ত তার নমুনার পরীক্ষা সমাপ্ত না হওয়ায় নিশ্চিত হওয়া যায়নি তার মৃত্যু কারণ। শুক্রবার বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল পিসিআর ল্যাব থেকে প্রাপ্ত রিপোর্টে  জানা গেছে, তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন।


প্রিয় পাঠক,করোনাভাইরাস সংক্রান্ত দেশ-বিদেশের নির্বাচিত নিউজ ও টিপস এখন থেকে পাওয়া যাবে আমাদের

ফেসবুক গ্রুপ Corona: News & Tips এ। গ্রুপটিতে যোগ দিয়ে সহজেই থাকতে পারেন আপডেট।


বগুড়া সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সামির হোসেন মিশু গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মৃত পুতুলের পাশাপাশি তার ছেলে ও ছেলের স্ত্রী এবং বাড়ির কেয়ারটেকারের দেহেও করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ কারণে শুক্রবার দুপুরে তাদের বাড়ি লকডাউন এবং সব সদস্যেদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

কামরুন্নাহার পুতুল প্রয়াত সাংসদ মোস্তাফিজার রহমান পটলের স্ত্রী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছি ল ৬৫ বছর।মৃত্যুকালে তিনি এক ছেলে ও দুই মেয়ে রেখে গেছেন।

কামরুন্নাহার পুতুল কয়েকদিন ধরে জ্বর, কাশি, পাতলা পায়খানা এবং খাবারে অরুচিজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার রাতে অবস্থার অবনতি হলে তাকে শজিমেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই মারা যান তিনি।

১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর কামরুন্নাহার পুতুল তৎকালীন বগুড়া-জয়পুরহাট জেলার সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ মনোনীত হন। তার স্বামী মোস্তাফিজার রহমান পটল ১৯৭৩ সালে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে বগুড়ার গাবতলী আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। কামরুন্নাহার পুতুল রাজনীতিতে যোগদানের আগে রূপালী ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন।

করোনায় সংক্রমণের রিপোর্ট পাওয়ার আগেই অবশ্য তাকে বগুড়া নামাজগড় গোরস্থানে দাফন করা হয়। তবে করোনা সন্দেহভাজন হিসেবে সব ধরনের স্বাস্থ্য বিধি মেনেই দাফন করা হয় তাকে।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ