ক্রিমিয়া সফর করলেন পুতিন

putin
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন (ছবি : ইন্টারনেট)
putin
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন (ছবি : ইন্টারনেট)

আন্তর্জাতিক সমালোচনা উপেক্ষা করে ক্রিমিয়া সফরে গেলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ইউক্রেন থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর এই ব-দ্বীপটিতে এটাই তার প্রথম সফর। শুক্রবার হিটলার বাহিনীর বিরুদ্ধে সোভিয়েতের বিজয়ের ১৬৯তম বার্ষিকী উপলক্ষে তিনি এই সফরে যান। খবর বিবিসির।

গত কয়েক মাস ধরে ইউক্রেন নিয়ে নোংরা রাজনৈতিক খেলায় মেতে উঠেছে রাশিয়া এবং পশ্চিমা দেশগুলো। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের উত্তারাধিকার হিসেবে রাশিয়া সবসময় ইউক্রেনে নিজের কর্তৃত্ব অক্ষুণ্ন চেষ্টা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত নভেম্বরে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সাথে বাণিজ্যিক চুক্তি স্বাক্ষরে অস্বীকৃতি জানান রাশিয়া সমর্থক প্রেসিডেন্ট ইয়ানুকোভিচ।

কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র এবং ইইউ’র মদদে দেশটিতে চলমান আন্দোলনের চাপে ইয়ানুকোভিচ সরে দাঁড়াতে বাধ্য হলে ইউক্রেনে রাশিয়ার কর্তৃত্ব হুমকির মুখে পড়ে। বিশেষ করে, অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের সাথে পশ্চিমাদের ঘনিষ্ঠতা রাশিয়ানদের শংকাকে আরও ঘনীভূত করে তোলে। এরই প্রেক্ষিতে, রুশ জাতিগোষ্ঠী অধ্যুষিত ক্রিমিয়া স্বাধীনতা ঘোষণা করে রাশিয়ার সাথে যোগদানের প্রস্তাব পাঠায়। রাশিয়াও ক্রিমিয়ার প্রস্তাব সাদরে বরণ করে নেয়।

শুক্রবার ক্রিমিয়ার সেভেস্টোপোলে পৌঁছানোর পর পুতিন সমর্থকদের সাথে হাত মেলান এবং রাশিয়ান বিমানবাহিনীর মহড়া উপভোগ করেন। পরবর্তীতে এক বক্তৃতায় পুতিন বলেন, আমি নিশ্চিত ২০১৪ সালটি আমাদের সবার কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ। এই বছরটি আমাদের একত্রিত হওয়ার বছর।

এই সময় পুতিন ক্রিমিয়াকে ইউক্রেন বলে উল্লেখ না করে জন্মভূমি হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের জন্য ক্রিমিয়ার অধিবাসীদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য, ৯মে কে রাশিয়ায় বিজয় দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়। ১৯৪৫ সালের এই দিন জার্মান বাহিনী সোভিয়েত বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করে।

এদিকে পুতিনের ক্রিমিয়া সফরের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ইউক্রেন। কিয়েভের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এই ঘটনাকে ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন বলে অভিহিত করা হয়েছে।