ধর্মগুরুর শেষকৃত্যে হাজারো মানুষ, নেই সামাজিক দূরত্ব
বুধবার, ২৭শে মে, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ধর্মগুরুর শেষকৃত্যে হাজারো মানুষ, নেই সামাজিক দূরত্ব

লকডাউনের মধ্যেই ভারতের এক ধর্মীয় গুরুর মৃত্যুতে কয়েক হাজার মানুষ উপস্থিত হলেন। মধ্যপ্রদেশের কাটনির এই ঘটনায় সামাজিক দূরত্ব মানার কোন বালাই ছিল না। তবে জেলা প্রশাসনের দাবি, লকডাউনের সকল সরকারি নিয়ম মেনেই আয়োজিত হয়েছিল এই জমায়েত।

গত রবিবার দেব প্রভাকর শাস্ত্রী বা ‘দাদাজি’ (৮২)মারা যান। তিনি স্বঘোষিত ধর্মগুরু ছিলেন। দেশজুড়ে তারবহু শিষ্য ও অনুগামী ছিল। দীর্ঘ দিন ধরে ফুসফুস ও কিডনির অসুখে ভুগছিলেন তিনি। দিল্লির হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকাকালীন শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে মধ্যপ্রদেশে ফিরিয়ে আনে প্রশাসন। এরপর মারা যান তিনি।

ধর্মীয় গুরুর মৃত্যুতে বহু ভক্ত ও শিষ্য জড়ো হতে থাকেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে তার শেষকৃত্যের ছবি ও ভিডিও। সেখানে দেখা যায়, দলে দলে মানুষ হাঁটছেন শেষযাত্রায়। মধ্যপ্রদেশের শিবরাজ সিংহ চৌহান, বিজেপির কৈলাস বিজয়বর্গীয়, দিগ্বিজয় সিংহ, কংগ্রেস নেতা কমল নাথ- সকলেই উপস্থিত ছিলেন দাদাজির শেষযাত্রায়। অভিনেতা আশুতোষ রানাকেও দেখা যায় ভিড়ের মধ্যে।

তবে কাটনি জেলার ম্যাজিস্ট্রেট শশীভূষণ সিং বলেছেন, কেউ নিয়ম অমান্য করেননি। সামাজিক দূরত্বের নিয়ম মেনে সবকিছু করা হয়েছে।

ভারতজুড়ে ২৫ মার্চ থেকে অনির্দিষ্টিকালের জন্য লকডাউন শুরু হয়েছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতেই এই সিদ্ধান্ত। নিষিদ্ধ সমস্ত রকম জমায়েত ও ভিড়। চলছে না গণপরিবহণ। ইতিমধ্যেই এই লকডাউন চতুর্থ দফায় শুরু হয়েছে ১৮ মে থেকে। চলবে ৩১ মে পর্যন্ত।

চতুর্থ দফার লকডাউনের গাইডলাইনে বলা হয়েছে, কেউ মারা গেলে তার শেষকৃত্যেও ২০ জনের বেশি লোকের সমাগম হবে না। তবে রাজ্যগুলির হাতে এ বিষয়গুলো দেখার দায়িত্ব দিয়েছে কেন্দ্র। এই পরিস্থিতিতেই প্রায় কয়েক হাজার মানুষ জমায়েত করলেন এই ধর্মীয় গুরুর শেষযাত্রায়। সূত্র: এনডিটিভি

অর্থসূচক/এসএস/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ