মোদির 'আলো থেরাপি'র দিনে করোনার বড় উল্লম্ফন
বৃহস্পতিবার, ২৮শে মে, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

মোদির ‘আলো থেরাপি’র দিনে করোনার বড় উল্লম্ফন

করোনার বিপর্যয় মোকাবেলায় করতালির পর ‘আলো থেরাপি’ ঘোষণা করেছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার আহ্বানে রোববার রাত ৯টায় সারাদেশে গরের বৈদ্যুতিক বাতি নিভিয়ে ৯ মিনিট ধরে মোববাতি, লণ্ঠনের আলো জ্বালিয়ে রাখেন দেশের মানুষ। অনেকেই বাজি ফাটিয়ে, গাড়ির হর্ন ও ঘণ্টা বাজিয়ে পরিবেশকে উৎসব মুখর করে তুলেন। মোদির আহ্বানে উদ্বুদ্ধ সবার আশা একটাই-এই আলোতে করোনাভাইরাস অন্ধকারে চলে যাবে।

কিন্তু মোদির এই ‘আলো থেরাপি’র দিনেই এসেছে সবচেয়ে খারাপ খবরটি। রোববার দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে ৭০০, যা এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। দেশটিতে করোনার সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর একদিনে এত সংখ্যা করোনা রোগী আর শনাক্ত হয়নি আগে। ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য অনুসারে, রোববার দিনশেষে ভারতে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ২৮৮ জন। মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১১৭।

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুসারে, নতুন আক্রান্তের সংখ্যা একটু কম। মন্ত্রণালয়ের হিসাবে রোববার সারাদেশে ৫০৫ জনের দেহে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৫৭৭ জন।

ভারতের সরকারি তথ্য অনুসারে, দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে ৮৩ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার ভারতের রাজধানী দিল্লীতে নতুন করে ৫৮ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। রাজধানীতে করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫০৩ জনে।

ভারতের রাজ্যগুলির মধ্যে মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি সবথেকে খারাপ। রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১১৩ জন বেড়ে ৭৪৮ হয়েছে। এর মধ্যে মুম্বইয়ের অবস্থা ভয়াবহ। শহরে এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩৩ জন। এ দিন নতুন করে আরও ৮ জনের মৃত্যু জেরে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩০।

তামিলনাড়ুতে এখনও পর্যন্ত ৫৭১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

রাজস্থানে রোববার আরও ৪৭ জন করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া যায়। যার ফলে সে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৫৩ জন।

এই বিভাগের আরো সংবাদ