করোনা মুক্তির প্রার্থনায় বাড়লো করোনার ঝুঁকি
বৃহস্পতিবার, ২৮শে মে, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

করোনা মুক্তির প্রার্থনায় বাড়লো করোনার ঝুঁকি

করোনার বিপর্যয় থেকে মুক্তির জন্য আয়োজন করা হয়েছে বিশেষ প্রার্থনার।আর তাতেই বেড়েছে করোনায় সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি। কারণে মন্দিরে প্রার্থনায় সামিল হওয়া ব্যক্তিরা সামাজিক দূরত্বের ধার ধারেনি। মন্দিরের বাইরে যারা ছিলেন তাদের অনেকেরই হাতে ছিল না গ্লাভস, মুখে ছিল না মাস্ক। যদিও মন্দিরের ভেতরে প্রবেশকারীদের মাস্ক পরতে বাধ্য করা হয়।

ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের বাঁকুড়ায় অবস্থিত একটি কালী মন্দিরে।

প্রায় একশ বছর পর আরও একটা মহামারির মুখোমুখি মানবসমাজ। এবারও মা রক্ষা কালী এই দূর্দিনের ত্রাতা হিসেবে সামনে উপস্থিত হয়ে সবাইকে রক্ষা করবেন এই বিশ্বাস থেকেই আয়োজন করা হয় বিশেষ পুঁজা ও প্রার্থনার। মারণ ভাইরাস ‘করোনা’র হাত থেকে বিশ্ববাসীকে রক্ষার প্রার্থনা জানাতে মন্দিরে জড়ো হন বিষ্ণুপুর এলাকার অসংখ্য মানুষ।

হাজার বছরেরও বেশী প্রাচীন এই মন্দিরে বিশেষ পুজো পাঠের মাধ্যমে দেবীর কাছে করোনার করাল গ্রাস থেকে বিশ্ববাসীকে রক্ষার প্রার্থনা জানান তারা।

কিন্তু প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য বিধি না মেনে প্রার্থনা করতে এসে তারা উল্টো করোনাভাইরাসের ঝুঁকি বাড়িয়েছেন বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।কারণ মন্দিরের ভেতরে ও বাইরে সমবেত লোকজন করোনা মোকাবেলার কোনো স্বাস্থ্যবিধিই মানেননি। গায়ে গা লাগিয়ে তারা মন্দিরের ভেতরে অবস্থান করেছেন,পুঁজা দিয়েছেন। অথচ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মতে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়ানোর প্রধান উপায় হচ্ছে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা। তাদের মতে, একজন ব্যক্তি থেকে অন্যজনের দূরত্ব হওয়া উচিত কমপক্ষে ১ মিটার (প্রায় ৩ ফুট)।

এই বিভাগের আরো সংবাদ