২৮ হাসপাতালে করোনার টেস্ট, প্রতি জেলায় ৫ হটলাইন
বৃহস্পতিবার, ৪ঠা জুন, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

২৮ হাসপাতালে করোনার টেস্ট, প্রতি জেলায় ৫ হটলাইন

দেশের ২৮ হাসপাতালে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, আমরা পর্যায়ক্রমে দেশের সব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেই করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করবো। এছাড়া প্রত্যেক জেলায় পাঁচটি করে হটলাইন দিতে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।

আজ সোমবার (৩০ মার্চ) গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আইইডিসিআর এর তথ্যমতে গত ৭২ ঘণ্টায় দেশে মাত্র একজন রোগী শনাক্ত হওয়ার বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, যে অবস্থায় আছি তাতে আমরা মনে করছি পজিটিভ দিকে যাচ্ছি। বিশ্বের অন্য দেশের তুলনায় আমরা অনেক ভালো আছি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা প্রতিদিনই প্রস্তুতি নিয়ে যাচ্ছি। রোগী না বাড়লেও প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমরা ২৮টি জায়গায় টেস্ট ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করছি। পর্যায়ক্রমে দেশের প্রত্যেকটি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে টেস্টের ব্যবস্থা করা হবে।

করোনা পরীক্ষার সরঞ্জমাদির সংকট আছে কিনা- প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, কিট বিদেশ থেকে আসছে। আমরা নিজেরাও সংগ্রহ করছি। আগের তুলনায় কিট সংগ্রহ অনেক বেড়েছে।

হাসপাতালগুলোর প্রস্তুতি নিয়ে তিনি বলেন, হাসপাতালগুলোয় করোনা রোগীর চিকিৎসায় ব্যবস্থা বেড়েছে। ঢাকা শহরে অনেক হাসপাতালে চিকিৎসা হচ্ছে। কুর্মিটোলা হাসপাতাল থেকে সাধারণ রোগী সরিয়ে কেবল করোনা রোগীর চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে। সেখানে আইসিইউ ও ডায়ালাইসি প্রয়োজন হলে দেওয়া হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনার কথা তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, আমাদের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে আমরা অনেক দূর এগিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সার্বক্ষণিক আলোচনা হয়, তার দিক নির্দেশনায় আমরা কাজ করছি।

হটলাইনে কল করেও ফোন না ধরা বা পরীক্ষার ব্যবস্থা না করার অভিযোগ নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, যেগুলো পরীক্ষার প্রয়োজন সেগুলো করা হচ্ছে। সবাই তো পরীক্ষার জন্য ফোন করে না। কেউ কেউ জানার জন্য ফোন করে। যার প্রয়োজন হবে তার পরীক্ষা করা হবে।

‘আমরা কল নেওয়ার জন্য ৫০টি লাইন করছি, প্রত্যেক জেলায় ৫টি করে লাইন দিতে বলেছি।’

মন্ত্রী বলেন, কিছু কিছু জায়গায় কক্সবাজার ও চট্টগ্রামে পরীক্ষার হার খুবই কম। লোকজন পরীক্ষার জন্য আসছে না।

করোনা থেকে মুক্ত থাকতে সাধারণ মানুষ বিশেষ করে বিদেশফেরতদের কোয়েন্টাইনের নিয়ম এবং স্বাস্থ্যবিধি সঠিকভাবে মেনে চলার আহ্বান জানান জাহিদ মালেক।

আর সাধারণ রোগীরা যেন চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত না হয় সেজন্য আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রাইভেট হাসপাতাল ও চিকিৎসকরা যেন তাদের নিয়মিত কাজ বহাল রাখেন, পিছপা না হন।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ