ইন্টারনেট ব্যবহার বেড়েছে অর্ধেকেরও বেশি
শনিবার, ৪ঠা জুলাই, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ইন্টারনেট ব্যবহার বেড়েছে অর্ধেকেরও বেশি

গেল ২৬ তারিখ থেকে সাধারণ ছুটিতে আছে গোটা দেশ। এরও আগে থেকে বন্ধ স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়। সারাদেশের মানুষ ঘরে থাকায় ইন্টারনেটের ব্যবহার বেড়েছে ৫০ ভাগেরও বেশি।

ঢাকাসহ সারাদেশের ব্রডব্র্যান্ড ইন্টারনেট সেবাদাতা (আইএসপি) প্রতিষ্ঠানগুলো জানিয়েছে, এই ছুটিতে বাসাবাড়িতে ইন্টারনেট ডাটা ব্যবহার প্রায় ৫০ শতাংশ বেড়েছে।

শুধু আমাদের দেশেই নয় এ অবস্থা সারাবিশ্বেই। ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেইটওয়ে (আইআইজি) প্রতিষ্ঠানগুলো জানিয়েছে, ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ চাহিদা বেড়েছে ১৫ থেকে ২০ শতাংশ। করোনার প্রভাবে সারাবিশ্বে লকডাউন দেয়ায় এই অবস্থা বলেও জানায় আইআইজি।

করোনার প্রভাবে দেয়া সাধারণ ছুটিতে সরকার এই সময়ে সবাইকে নিজের ঘরে থাকতে পরামর্শ দিয়েছে। বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকতে পুলিশের পাশাপাশি সশস্ত্র বাহিনীও মোতায়েন করেছে। এ অবস্থায় বাইরে বের হতে না পারা মানুষদের এখন ঘরে সময়ের অনেকটাই কাটছে ইন্টারনেটে ব্যবহার করে।

সরকারের দেয়া সাধারণ এই ছুটি শুরু হওয়ার পরপরই ইন্টারনেট চাহিদা বেড়ে যায় বলে জানায় ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ।

বাসা-বাড়িতে ইন্টারনেট ব্যবহার বাড়লেও এর প্রভাব পড়েনি ইন্টারনেট সেবা দাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর। ছুটিতে কর্পোরেট ব্যাবহারকারীদের ইন্টারনেট ব্যবহার এখন বন্ধ রয়েছে এবং সেই ক্যাপাসিটি বাসা বাড়িতে সরবরাহ করা হচ্ছে। ফলে বাড়তি কোনো চাপ পড়েনি।

শুধু ইন্টারনেট ব্যবহারই না, নতুন সংযোগ নেয়ারও হার বেড়েছে। টেলিযোগোযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার হিসেবে গত ফেব্রুয়ারি নাগাদ দেশে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগ সংখ্যা ৫৭ লাখ ৪৩ হাজার।

ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধার্থে বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল ‘সি-মি-উই-৪’ এ যুক্ত হয় ২০০৫ সালে। আর ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল ল্যান্ডিং স্টেশনের মাধ্যমে ‘সি-মি-উই-৫’ সাবমেরিন কেবলে যুক্ত হয়।

এছাড়াও বাংলাদেশ এখন ছয়টি বিকল্প মাধ্যমে (আইটিসি বা ইন্টারন্যাশনাল টেরিস্টেরিয়াল কেবল) ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবের সঙ্গে যুক্ত।

শুধু আইএসপিরই না, ইন্টারনেট ব্যবহার বেড়েছে মোবাইল ডেটাতেও। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তর মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার শাহেদ আলম বলেন, তাদের ডাটার ব্যবহার বেড়েছে ২১ শতাংশ।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার হিসেবে, গত ফেব্রয়ারি নাগাদ দেশে ৯ কোটি ৪২ লাখ ৩৬ হাজার মোবাইল ইন্টারনেট গ্রাহক রয়েছে।

অর্থসূচক/এসএ/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ