সারাদেশ লকডাউন করার দাবি সুজনের
রবিবার, ৩১শে মে, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

সারাদেশ লকডাউন করার দাবি সুজনের

মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সমন্বিত প্রচেষ্টা চালানো, বিশেষ তহবিল গঠন, নিরাপদ চিকিৎসা সেবা ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য স্বল্পমূল্যে খাদ্যদ্রব্য যোগানসহ কয়েক সপ্তাহ সারাদেশ লকডাউনের দাবি জানিয়েছে জানিয়েছে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)।

আজ রোববার (২৯ মার্চ) সুজন সভাপতি এম হাফিজ উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এসব দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, করোনা ভাইরাস সারাবিশ্বে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এটি ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়লে দেশে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয় তৈরি হতে পারে। এমন প্রেক্ষাপটে সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করার জন্য আমরা সুজন-এর পক্ষ থেকে সরকারের নিকট কিছু গুরুত্বপূর্ণ দাবি জানাচ্ছি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনা মোকাবিলায় দ্রুত বিশেষজ্ঞ, রাজনৈতিক নেতৃত্ব, নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি ও সংশ্লিষ্টদের নিয়ে স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘমেয়াদি সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করুন। কর্মপরিকল্পনাটি বাস্তবায়নের জন্য বিশেষ তহবিল গঠন করুন এবং স্বচ্ছতার ভিত্তিতে এই তহবিলের একটি বড় অংশ দেশের শ্রমজীবী (৬ কোটি ৮ লাখ), হতদরিদ্র ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর মাঝে বণ্টন করুন। হতদরিদ্র, খেটে-খাওয়া ও দিনমজুর মানুষদের জন্য বিনামূল্যে কিংবা স্বল্পমূল্যে খাদ্যদ্রব্য জোগান দিন। অনতিবিলম্বে কয়েক সপ্তাহের জন্য সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করুন। সারাদেশে সহজলভ্য উপায়ে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরীক্ষা/চিহ্নিত করা, বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণসহ চিকিৎসা সেবার সক্ষমতা বাড়ান।

এছাড়া পিপিই সরবরাহ করা, প্রশিক্ষণ প্রদানসহ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং তাদের মনোবল অটুট রাখতে বিশেষ প্রণোদনা ঘোষণার দাবি জানিয়েছে সুজন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিদেশ ফেরত ও সন্দেহভাজন রোগীদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে হবে। যারা কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন তাদের খাদ্যসহ প্রয়োজনীয় মানবিক সহায়তা নিশ্চিত করতে হবে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক, ধর্মীয় ও সামাজিক নেতৃবৃন্দদের নিয়ে বিশেষ কমিটি গঠন করতে হবে। এই কমিটির কাজ হবে জনসচেতনতা সৃষ্টি করা, সরকারি ও স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা মানতে জনগণকে উদ্বুদ্ধ ও বাধ্য করা, নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য আর্থিক সহায়তার ব্যবস্থা করা এবং যথাযথ ব্যক্তিরা যাতে সরকারি সেবা পায় তা নিশ্চিত করা। সরকারি কর্মকর্তারা যাতে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেন এবং জনপ্রতিনিধিরা যাতে জনগণের পাশে দাঁড়ান তা নিশ্চিত করতে হবে।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ