ArthoSuchak
শুক্রবার, ১০ই এপ্রিল, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

জ্বর-শ্বাসকষ্টের রোগীর মৃত্যু, করোনার সন্দেহ, লাশ রেখে পালিয়েছে স্বজনরা

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জ্বর ও শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে।সংশ্লিষ্টরা আশংকা করছেন করোনায় তার মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে।

এদিকে ৪৫ বছর বয়সী এই রোগীর আত্মীয়স্বজন মৃত্যুর পর লাশ রেখে পালিয়ে গেছেন।

জানা গেছে, মৃত ব্যক্তির বাড়ি খুলনা নগরীর হেলাতলা এলাকায়। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে তার মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. এ টি এম মঞ্জুর মোর্শেদ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ওই রোগীর জ্বর ও শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ার পর চিকিৎসকরা তার চিকিৎসা সংক্রান্ত পূর্ববর্তী তথ্য নেন।

এই সময় জানা যায়, এই হাসপাতালে আসার আগে ঢাকার একটি হাসপাতালের ওই রোগীর থাইরয়েড সার্জারি হয়েছিল। তিনি তখন আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন। একই আইসিইউতে চিকিৎসাধীন একজন রোগী মারা গেলে জানা যায় তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।মৃত ব্যক্তির চিকিৎসার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ওই হাসাপাতালের একজন ডাক্তারও করোনায় আক্রান্ত হয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন।

খুলনায় মৃত ব্যক্তি কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর ওই হাসপাতাল থেকে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। তখন তাকে পরবতী ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয় হাসপাতালের পক্ষ থেকে।

ঢাকা হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়ার পর ব্যক্তিটি খুলনায় চলে আসেন।কিন্তু তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনের নির্দেশনা না মেনে খুলনা মেডিক্যাল কলেজের সার্জারি ওয়ার্ড-১ এ ভর্তি হন।এখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে তার জ্বর ও শাসকষ্ট দেখা দেয়। প্রথমে সবাই ভেবেছিলেন অপারেশনের কারণে হয়তো এমন সমস্যা হচ্ছে। দুপুর দেড়টায় রোগীর মৃত্যু হয়।পরে ঢাকার হাসপাতালে তার চিকিৎসার বিস্তারিত তথ্য জানা যায় তার স্বজনদের কাছ থেকে।তবে কিছুক্ষণ পর লাশ রেখে স্বজনরা গোপনে হাসপাতাল থেকে সটকে পড়েন।

মৃত রোগী ও তার স্বজনদের তথ্য গোপনের কারণে খুলনা মেডক্যাল কলেজ হাসপাতালের ১৫-২০ জন চিকিৎসক,নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী ঝুঁকির মধ্যে পড়েছেন। তাদের সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

তবে মৃত্ ব্যক্তি সত্যিই করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন কি-না,তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। আইইডিসিআর এর কাছ থেকে পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়ার পরই কেবল বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে। কিন্তু তার আগে পর্যন্ত আতঙ্ক কাটবে না সংশ্লিষ্টদের।

এই বিভাগের আরো সংবাদ