উপসর্গহীন নতুন রোগী নিয়ে শঙ্কিত চীন
রবিবার, ৩১শে মে, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

উপসর্গহীন নতুন রোগী নিয়ে শঙ্কিত চীন

সারাবিশ্বে তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনা ভাইরাস। করোনার উৎসভূমি চীন এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অভূতপূর্ব সাফল্য দেখিয়েছে। দেশটির সরকার এই সাফল্যকে বিজয় হিসেবে দেখছে। দেশের অনেক অঞ্চলে লকডাউনও তুলে নিচ্ছে সরকার। বিজয়ের এই ক্ষণে নতুন করে অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে। তবে তাদের কোনো উপসর্গ প্রকাশ পাচ্ছে না।

চীনা সরকার নতুন এই রোগীদের নিয়ে আবার উদ্বেগে পড়েছে। নিজেদের সংক্রমণের কথা না জেনেই তারা ভাইরাসটি ছড়িয়ে দিতে পারে। ফলে এরা সামনের দিনগুলোতে সংকটের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের খবরে এ তথ্য জানা যায়।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪০ হাজারের বেশি এ ধরনের রোগী রয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমটি জানায়। এক্ষেত্রে চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং দেশটির জনগণ ও কর্মকর্তাদের প্রতি নতুন সংক্রমণ গোপন না করার আহ্বান জানান।

চীন এউ মূহুর্তে কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে যুদ্ধজয়ের ঘোষণার দ্বারপ্রান্তে। এরই মধ্যে তারা জনসাধারণের চলাচলের ওপর এতদিনের বিধিনিষেধ শিথিল করেছে। ভাইরাসের কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত হুবেইয়ের সীমানা গত দুই মাস অবরুদ্ধ করে রাখার পর বুধবার খুলে দেয়া হয়েছে। লকডাউন তুলে নেয়ার ফলে এতদিন ধরে ঘরবন্দি উপসর্গবিহীন আক্রান্তরা অন্যদের মধ্যে ভাইরাসটির সংক্রমণ ছড়িয়ে দেয় কিনা তা নিয়ে বাড়ছে উদ্বেগ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রাণঘাতী রোগ কোভিড-১৯ এর নিয়ন্ত্রণে উপসর্গবিহীন আক্রান্তরা সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হতে পারে। তাদেরকে শনাক্ত করা না গেলে রোগটির সংক্রমণ রোধ করা কঠিন হয়ে যাবে।

মঙ্গলবার পর্যন্ত চীন মোট ৮১ হাজার ২১৮ জনের দেহে করোনা ভাইরাস শনাক্তের কথা জানিয়েছে। মৃত্যুর খবর দিয়েছে তিন হাজার ২৮১ জনের। উপসর্গবিহীন এ আক্রান্তদের খোঁজ বের করা হচ্ছে মূলত শনাক্ত হওয়া ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের পরীক্ষার মাধ্যমে। পরীক্ষায় যাদের দেহে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি মিলছে, লক্ষণ না থাকলেও তাদের স্থান হচ্ছে কোয়ারেন্টাইনে।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষে চীনের হুবেই প্রদেশ থেকে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাস সংক্রমণে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যে ২১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লাখের কাছাকাছি।

অর্থসূচক/এসএস/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ