ArthoSuchak
বৃহস্পতিবার, ৯ই এপ্রিল, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

পিএসএলের শেষ তিন ম্যাচ নভেম্বরে

বিশ্বজুড়ে চলছে করোনার আতঙ্ক। এই আতঙ্কে বন্ধ হয়ে গিয়েছে বিশ্বের জনপ্রিয় সব টুর্নামেন্ট। ঘরোয়া ক্রিকেট লিগের সবচেয়ে জনপ্রিয় টুর্নামেন্ট আইপিএলও পিছিয়ে গিয়েছে। এই বছর মাঠে গড়াবে কি না কিংবা খেলা হলেও কতটুকু হবে সে নিয়ে রয়েছে শঙ্কা।

psl

পিএসএলের প্রথম ও দ্বিতীয় আসরে অংশ নেওয়া দল, পিএসএল ও পিসিবির লোগো।

এরই মধ্যে পাকিস্তান সুপার লিগ শুরু হয়ে প্রায় শেষও হয়ে গিয়েছিলো। বাকি ছিল শুধু সেমিফাইনাল আর ফাইনাল ম্যাচগুলো। কিন্তু করোনার প্রকোপে খেলা আর চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি। ফলে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয় পিএসএল। কিন্তু অনির্দিষ্টকাল বলতে কত দিন? সেটাও জানিয়ে দিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। আট মাসের জন্য পেছান হয়েছে দেশটির ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক এই টুর্নামেন্ট।

আগামী নভেম্বরে আয়োজন করা হবে পিএসএলের সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ম্যাচগুলো। অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এই টুর্নামেন্ট শেষে নভেম্বরে দশ দিনের ভেতর স্থগিত হওয়া পিএসএলের বাকি ম্যাচগুলো আয়োজন করতে চায় পিসিবি।

টুর্নামেন্টে খেলতে থাকা একজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, এ সন্দেহে গত ১৭ মার্চ পিএসএল স্থগিত করে পিসিবি। দুই সেমিফাইনালে মুখোমুখি হওয়ার কথা মুলতান সুলতানস-পেশোয়ার জালমি ও করাচি কিংস-লাহোর কালান্দার্সের। ফাইনাল হওয়ার কথা ছিল ১৮ মার্চে। হয়নি কোনোটিই। পিএসএলের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ১২৮ খেলোয়াড়কে এরপর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার প্রমাণ কারওর কাছ থেকেই পাওয়া যায়নি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে পিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াসিম খান বলেন, ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সঙ্গে বসে এ ব্যাপারে আলোচনা করতে হবে। অনেকে এমন পরামর্শও দিয়েছেন যে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে থাকা মুলতান সুলতানসকে শিরোপাজয়ী হিসেবে ঘোষণা করার। অথবা আগামী বছর পিএসএল-৬ এর আগে এবারের বাকি ম্যাচগুলো আয়োজন করার। তবে আমরা নভেম্বরে পিএসএলের শেষ তিনটি ম্যাচ আয়োজনের চেষ্টা করব।

এদিকে পিএসএল স্থগিত হওয়ার কারণে বিদেশি সব খেলোয়াড় পাকিস্তান ছেড়ে পাড়ি জমিয়েছেন নিজ নিজ দেশে। নিজের বাড়িতে গিয়ে প্রায় সবাই গৃহবন্দী জীবন কাটাচ্ছেন।

অর্থসূচক/এসএম/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ