চীনে নতুন ভাইরাস: মৃত্যু ১, আক্রান্ত ৩২ 
রবিবার, ৫ই জুলাই, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

চীনে নতুন ভাইরাস: মৃত্যু ১, আক্রান্ত ৩২ 

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের অতল গহ্বরে তলিয়ে যাচ্ছে সমগ্র বিশ্ব। একের পর এক দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই রোগ। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে একের পর এক শহর রীতিমত লকডাউন হয়ে গিয়েছে। ডুবতে বসেছে বিশ্ব অর্থনীতি। যদিও করোনার উৎপত্তিস্থল চিনের উহান এখন অনেকটাই স্বাভাবিক। তবে তাই বলে ভাইরাসের কবল থেকে মুক্তি মেলেনি দেশটির। করোনার পর আরেকটি ভাইরাসের কবলে পড়েছে দেশটি। এর নাম -হান্টাভাইরাস। ইতিমধ্যে চিনের মাটিতে হানা দিয়েছে হান্টাভাইরাস।

সোমবার চিনের হুনান প্রদেশে এই হান্টা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় এক ব্যক্তির৷ বাসে করে শ্যানডং প্রদেশে যাওয়ার সময় ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়৷ বাসে বাকি ৩২ জনের শরীরেও মিলেছে এই ভাইরাস৷ এই খবর প্রকাশিত হয়েছে চিনের গ্লোবাল টাইমসে৷

আর এই ভাইরাসের খবর ছড়িয়ে পড়তেই নতুন করে আতঙ্কের জন্ম নিয়েছে গোটা বিশ্বজুড়ে। যদিও গবেষকরা বলছেন, করোনার মতো এতটা মারাত্মক পরিস্থিতি হয়তো তৈরি হবে না। কারণ এই ভাইরাস করোনার মতো মানুষের শরীরে এতটা ছড়িয়ে পড়ে না। তবে এই ভাইরাস অবশ্যই প্রাণঘাতী বলেই মনে করছেন গবেষকরা।

বর্তমানে চিনে করোনা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। যে শহর থেকে প্রথম করোনা ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল সেখানে নতুন করে কোনও রোগীর খোঁজ পাওয়া যায়নি। কিছুটা হলেও স্বস্থির পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। কিন্তু নতুন এই হান্টা ভাইরাস চিনের ডাক্তারদের ফের মাথা ব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অনেকে বলছেন, একে করোনায় রক্ষা নেই দোসর হল হান্টা। মারণ এই হান্টা ভাইরাস মূলত ইঁদুর প্রজাতির প্রাণীর মাধ্যমে মানব দেহে ছড়িয়ে পড়ছে। এই মারণ ভাইরাস মূলত প্রসাব থেকেই প্রাণঘাতী ভাইরাস ছড়ায় মানবদেহে। গবেষকরা জানাচ্ছেন, হান্টা এই ভাইরাসকে এখনই আটকানো না গেলে বর্ণনার থেকেও আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে।

এক নজরে দেখে নিন ভয়ঙ্কর এই হান্টা ভাইরাসের উপসর্গ কি?

গবেষকরা বলছেন, সবে মাত্র এই ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। আরও এই বিষয়ে গবেষণা প্রয়োজন। তবে প্রাথমিকভাবে রোগীর মধ্যে যা দেখা যাচ্ছে, তাতে প্রবল জ্বর হচ্ছে। প্রচন্ড মাথা যন্ত্রণা হচ্ছে একজন রোগীর। গায়ে পায়ে প্রচন্ড ব্যাথা। একই সঙ্গে হচ্ছে পেট ব্যথাও।

অর্থসূচক/এনএম 

 
এই বিভাগের আরো সংবাদ