ArthoSuchak
বুধবার, ৮ই এপ্রিল, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

করোনায় আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণগ্রহীতাদেরও বিশেষ সুবিধা

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের কারণে ব্যবসায় ক্ষতি ও কর্মসংস্থানের বাধা রোধে ব্যাংক থেকে ঋণগ্রহীতাদের জন্য বিশেষ সুবিধা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এবার বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণগ্রহীতাদের জন্যও একই সুবিধা দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক।


অর্থসূচকে প্রকাশিত পুঁজিবাজার ও ব্যাংক-বিমার খবর গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলো এখন নিয়মিত পাওয়া যাচ্ছে আমাদের ফেসবুক গ্রুপ Sharebazaar-News & Analysis এ। প্রিয় পাঠক, গ্রুপটিতে যোগ দিয়ে সহজেই থাকতে পারেন আপডেট।


বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, আগামী জুন পর্যন্ত কোনো ঋণগ্রহীতা ঋণ শোধ না করলেও ঋণের শ্রেণিমানে কোনো পরিবর্তন আনা যাবে না। অর্থাৎ মার্চ এবং জুন এই দুই প্রান্তিকে খেলাপি ঋণ আর এক টাকাও বাড়বে না।

আজ মঙ্গলববার (২৪ মার্চ) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

দেশে কার্যরত সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, নোভেল করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী মহামারি আকার ধারণ করেছে। বিশ্ব বাণিজ্যের পাশাপাশি বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এর প্রভাব পড়েছে। ঋণগ্রহীতাদের আর্থিক আর্থিক ক্ষতি এবং ঋণ পরিশোধের বিষয়টি বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। ১ জানুয়ারি থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত সকল প্রকার ঋণ ও অগ্রিম এর শ্রেণিমান অপরিবর্তিত থাকবে।

এর ফলে বর্তমানে কোনো ঋণগ্রহীতা যদি ৩০ জুন পর্যন্ত কিস্তি পরিশোধে ব্যর্থ হন, তাহলে তাকে খেলাপি করা যাবে না। বরং কোনো খেলাপি ঋণগ্রহীতা যদি এই সময়ের মধ্যে ঋণ শোধ করেন তাকে নিয়মিত ঋণগ্রহীতা হিসেবে চিহ্নিত করা যাবে।

বর্তমানে কোনো ঋণ ছয় মাস অপরিশোধিত থাকলে সাব-স্ট্যান্ডার্ড, নয় মাস থাকলে নিম্নমান এবং এক বছর থাকলে ক্ষতিজনক মান বিবেচনা করা হয়। এ ছাড়া সাব-স্ট্যান্ডার্ডের আগের অবস্থা স্পেশাল মেনশন অ্যাকাউন্ট বা এসএমএ হিসেবে বিবেচিত হয়।

অর্থসূচক/জেডএ/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ