ডেঙ্গু প্রতিরোধে দুই সিটিকে সতর্ক হতে বললেন হাইকোর্ট
সোমবার, ১লা জুন, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ডেঙ্গু প্রতিরোধে দুই সিটিকে সতর্ক হতে বললেন হাইকোর্ট

করোনা ভাইরাসের চলমান প্রাদুর্ভাবের মধ্যে ডেঙ্গু নিয়ে দুই সিটি করপোরেশনকে আগাম সতর্ক করছেন হাইকোর্ট।

আদালত বলেছেন, বাংলাদেশ ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। যদি ঢাকায় কোনোভাবে করোনার সাথে ডেঙ্গুর প্রার্দুভাব শুরু হয়। তখন মানুষের শেষ জায়গাটিও থাকবে না।

ঢাকার বায়ুদূষণ নিয়ে মামলার শুনানিতে আজ বুধবার (১১ মার্চ) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এমন সতর্কবার্তা দেন।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। আর দুই সিটির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী তৌফিক ইনাম টিপু ও সাঈদ আহমেদ রাজা।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার সাংবাদিকদের বলেন, গত বছর মৌসুম আসার আগেই দুই সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে ডেকে সতর্ক করা হয়েছিল যেন মশকনিধন সঠিকভাবে করেন, ডেঙ্গুর প্রার্দুভাব থেকে রক্ষার জন্য। সেটাতো হয়নি। পরে ডেঙ্গুর অস্থির অবস্থা জাতি লক্ষ্য করেছে।

তিনি বলেন, আদালত দুই সিটির আইনজীবীকে সতর্ক করে উল্লেখ করেছেন, সতর্ক হন। মশানিধনে মনোযোগী হন। ডেঙ্গু প্রতিরোধে যা যা করার দরকার, তাই করেন। জরুরি ভিত্তিতে, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পদক্ষেপ নিতে বলেছেন আদালত।

আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ আরও বলেন, ঢাকায় বায়ুদূষণ মামলায় ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন পৃথকভাবে তাদের অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করেছে। আদালত সেটি পর্যালোচনা করে সিটি করপোরেশনের সর্বশেষ পানি ছিটানোর পদ্ধতি এবং অগ্রগতির বিষয়ে সন্তুষ্ট হতে পারেননি।

এর আগে গত ০২ ফেব্রুয়ারি পরিবেশ রক্ষায় অভিযান পরিচালনার জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরে একমাসের মধ্যে পাঁচজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পদায়ন করতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণায়লকে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে আদালত বায়ুদূষণ রোধে বিশেষজ্ঞ মতামত এবং উচ্চতর কমিটির সুপারিশ নিয়ে একটি সমন্বিত কার্যক্রম তৈরি করে ১০ মার্চের মধ্যে দাখিলের নির্দেশ দেন।

সে নির্দেশনা অনুযায়ী, বুধবার আদালতে বাস্তবায়ন প্রতিবেদন দাখিল করে পরিবেশ অধিদপ্তর।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ