করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যেতে না পারলে টাকা ফেরত
শনিবার, ৪ঠা জুলাই, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

করোনা ভাইরাসের কারণে হজে যেতে না পারলে টাকা ফেরত

করোনা ভাইরাসের কারণে অনিশ্চয়তার কথা চিন্তা করে কেউ হজের নিবন্ধনে বিলম্ব করলে তার হজ যাত্রার সমস্যা হতে পারে বলে জানিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব এডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

একইসঙ্গে তিনি জানান, নিবন্ধনকারীদের আর্থিক বা মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। টাকা জমা দিয়ে কেউ যদি করোনা ভাইরাসের জন্য যেতে না পারে তাদের টাকা মার যাবে না। বিলম্ব হলে যখনই টাকা ফেরত চাবেন পাবেন।

আজ রোববার (৮ মার্চ) দুপুরে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে করোনা ভাইরাসের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের হজ যাত্রীদের নিবন্ধন প্রক্রিয়া ও ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিফিংকালে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বাংলাদেশসহ বিশ্বের শতাধিক দেশ সতর্কতামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। এরই অংশ হিসেবে সৌদি ওমরাহ ভিসা ইস্যুকরণ সাময়িক বন্ধ রেখেছে। সৌদি সরকারের এই সময়োপযোগী উদ্যোগকে আমরা স্বাগত জানাই। আশা করছি আল্লাহ রাব্বুল আলামিন পবিত্র হজের পূর্বেই বিশ্ববাসীকে এই বিপদ থেকে রক্ষা করবেন।

তিনি আরো বলেন, অনিশ্চয়তার কথা চিন্তা করে কেউ যদি হজের নিবন্ধনে বিলম্ব করে তার হজ যাত্রায় সমস্যা হতে পারে। আগে থেকেই যদি একজন হজ যাত্রী প্রস্তুতি গ্রহণ না করেন তাহলে তিনি এ বছর হজে যেতে পারবেন না। তাই হজ যাত্রীদের সরকার প্রদত্ত ঘোষণা অনুসরণ করে নির্দিষ্ট সময়ে নির্ধারিত ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে নিবন্ধন কাজ সম্পন্ন করার আহ্বান জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, টাকা জমা দিয়ে নিবন্ধনের পরই সৌদি আরবে মোয়াল্লিম নির্ধারণ, মক্কা-মদিনায় বাড়ি ভাড়া করা, আনুষঙ্গিক ব্যয় মেটানোর জন্য সৌদি আরবে অর্থ প্রেরণের কাজ সম্পন্ন করতে হয়। এর প্রত্যেকটি কাজই সময় আবদ্ধ। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এ কাজগুলো সম্পন্ন করতে না পারলে একজন যাত্রীদের হজে গমন সম্ভব নয়। সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আমরা সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করে যাচ্ছি। করোনার প্রাদুর্ভাবের ফলে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় সৌদি আরবের পক্ষ থেকে আমাদের সকল সহযোগিতার আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

হজ যাত্রীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা উদ্বিগ্ন হবে না, আতঙ্কিত হবেন না। নির্ধারিত সময় ১৫ মার্চের মধ্যেই যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করুন। আপনাদের শঙ্কা দূর করতে সৌদির সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করছি। তারা সারাবিশ্বের সকল হাজীদের জন্য একই চিন্তা করছে। সকলে যেন হজে যেতে পারেন। কোনো টাকা যেন মার না যায় তাতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আপনাদের টাকা নষ্ট হবে না। যখনই হজ হবে আপনারা যেতে পারবেন। বিলম্ব হলে যখনই টাকা ফেরত চাবেন পাবেন। সেই টাকায় সামনের বছর যেতে চাইলে যেতে পারবেন। সৌদি আরবও একই ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

চলতি বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৭ হাজার ১৯৮ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার জনসহ মোট ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন হজযাত্রী এবার হজে যাওয়ার কথা রয়েছে।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ