ArthoSuchak
শুক্রবার, ১০ই এপ্রিল, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

রাস্তার মাঝখানে বৈদ্যুতিক খুঁটি, ভ্রুক্ষেপ নেই বিদ্যুৎ বিভাগের

বর্তমানে সড়কে অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা। সড়কে যেন মানুষের মৃত্যু থামছেই না। রাস্তায় বের হলেই শঙ্কায় থাকে সাধারণ মানুষ। অবহেলাসহ বিভিন্ন কারণে এভাবে মানুষের প্রাণ যাচ্ছে। তারপর সচেতন হচ্ছে না সরকারি প্রতিষ্ঠান, কর্মকর্তা, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। তারা রাস্তার মাঝখানে বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই নির্মাণ কাজ শেষ করছে। এসব বিষয়ে বিদ্যুৎ বিভাগকে জানানো হলেও নেয়া হয়নি কোনো উদ্যোগ।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন কমিশন ও পিকেএসএফ ভবনের মাঝখানে রাস্তা সংস্কার কাজ চলমান। এই রাস্তার একটি অংশে ঢালাইয়ের কাজ শেষ করা হয়েছে। এই অংশে রাস্তার মাঝখানে বেশ কয়েকটি বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই ঢালাই কাজ শেষ করা হয়েছে। একই রাস্তার নির্বাচন ভবন ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন ভবন অংশে আরেকটি বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখে ঢালাইয়ের কাজ শেষ হয়েছে।

আজ বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ঘটনাস্থলে কিছুক্ষণ অবস্থান করে দেখা যায়, ঝুঁকিপূর্ণভাবে যানবাহন চলাচল করছে ওই খুটির পাশ দিয়ে। অবস্থা এ রকম হয়েছে, যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

চালক, পথচারীরা বলছেন, রাস্তার মাঝে এভাবে খুঁটি রেখে ঢালাই শেষ করা ঠিক হয়নি। যেকোনো সময় এই খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেখে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। সিটি করপোরেশন ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান যেন দুর্ঘটনা ঘটার জন্য খুঁটি দুটি রেখে দিল।

রিকশাচালক শাহ আলম বলেন, রোডের মাঝখানে পড়ছে সমস্যা হইতেই পারে। আইল্যান্ডের একপাশে কিংবা রাস্তার একপাশে নিতে হবে।

পিকেএসএফের এক কর্মকর্তা বলেন, বৈদ্যুতিক খুঁটি দুইটি রাস্তার মাঝখানে এমন ভাবে রয়েছে সব সময় শঙ্কায় থাকি। রাস্তা একটু ফাঁকা থাকায় গাড়ি খুব দ্রুত আসে। একটু বেখেয়াল হলেই বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটবে। এদিকে এ নিয়ে কোন ভ্রুক্ষেপ নেই কর্তৃপক্ষের।

রাস্তার মেরামত কাজে নিয়োজিতরা জানান, এই রাস্তার পুরুত্ব ৪৪ ইঞ্চি। ঢালাইয়ের কাজ শেষ হয়েছে। এখন ফিনিশিংয়ের কাজ চলবে। এই খুঁটি এখন উপড়ে ফেলা সম্ভব না। এর একমাত্র সমাধান হলো কেটে ফেলা।

রাস্তা নির্মাণকাজে সুপারভাইজারের দায়িত্বে থাকা কমল নামে একজন বলেন, রাস্তার মাঝখান থেকে খুঁটিগুলো সরানোর জন্য সিটি কর্পোরেশন বিদ্যুৎ বিভাগকে চিঠি দিলেও তারা কোনো উদ্যোগ নেয়নি। এদিকে আমাদের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। আমরাও শঙ্কার মধ্যে রয়েছি, যেকোনো সময় বড়ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

অর্থসূচক/এমআরএম/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ