ArthoSuchak
সোমবার, ৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ভৈরব মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিস পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় আসামীর স্বীকারোক্তি

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর অফিস আগুনে পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত আসামী আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। ফলে ২১ জানুয়ারি গভীর রাতে অফিসটি আগুনে পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনাটির রহস্য উম্মোচিত হলো।

ঘটনার সাথে জড়িত মোস্তাক আহমেদ নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে পুলিশ গ্রেফতার করার পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদে এ রহস্য উম্মোচন হয়।

মোস্তাক শহরের আমলাপাড়া নিবাসী মো. জজ মিয়ার ছেলে। সে গ্রেপ্তারে পর কিশোরগঞ্জ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানায়, মাদক বিরোধী অভিযানের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে তারা ৪ জন মিলে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসে আগুন দেয়।

ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহিন সাংবাদিকদের এইসব তথ্য জানান।

তিনি আরও জানান, গত ১৩ ফেব্রুয়ারী মোস্তাক আহমেদকে শহরের আমলাপাড়া এলাকার বাড়ি থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে। তাকে গ্রেফতারের পর সে গত ১৪ ফেব্রুয়ারী কিশোরগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্র্যাট বিচারক মো. রফিকুল বারীর আদালতে ঘটনার কথা ১৬৪ ধারায় স্বীকার করেন।

ঘটনার সাথে আরও ৩ জন জড়িত রয়েছে। মামলাটি তদন্তের স্বার্থে তিনজনের নাম আপাতত বলা যাবেনা বলে তিনি জানান।

গত ২১ জানুয়ারী গভীর রাতে ভৈরব মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর অফিসটি দুর্বত্তরা পুড়িয়ে দেয়। এদিন আগুনে অফিসের ফাইলপত্র, কম্পিউটার, লেপটবসহ আসবাপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ঘটনার দিন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের একটি টিম মাদকবিরোধী অভিযান চালায়। এদিন ৯ জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে জেল জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রাতে অফিসটি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয় তারা।

অর্থসূচক/এমএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ