রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন দেরি হলেও তদন্ত-বিচার অব্যাহত থাকবে

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর সংঘটিত অপরাধ তদন্ত শুরু করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি)। রোহিঙ্গাদের ওপর সংঘটিত অপরাধের সঙ্গে যুক্ত দোষীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করবেন এই আদালত।

আজ মঙ্গলবার (৪ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁ হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের সিনিয়র পাবলিক প্রসিকিউটর হাসিকো মোকোচোকো।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন দেরি হলেও প্রতিটি ঘটনার তদন্ত-বিচার প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। তদন্তের স্বার্থে এখনই সবকিছু প্রকাশ করা যাচ্ছে না। তবে ব্যক্তি পর্যায়ে রোহিঙ্গাদের ওপর সংঘটিত অপরাধের সঙ্গে যুক্ত দোষীদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে।

হাসিকো মোকোচোকো বলেন, তথ্য সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে। রোহিঙ্গাদের ওপর রাখাইনে সংঘটিত অপরাধ ক্ষতিয়ে দেখা হবে আদালতে এবং এই অপরাধের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের চিহ্নিত করা হবে। সংঘটিত এসব অপরাধের দলিল সংগ্রহ করা হচ্ছে।

আইসিসি প্রসিকিউটরের উপদেষ্টা ফাকিসো বলেন, মিয়ানমার রোম স্ট্যাটিউটের স্বাক্ষরকারী দেশ না হলেও আইসিসির বিচারে প্রভাব পড়বে না।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, রোহিঙ্গা নৃশংসতার জন্য আমরা তদন্ত শুরু করেছি। মিয়ানমার আইসিসির তদন্তে কোনো প্রকার সহযোগিতা, সে দেশে আমাদের প্রবেশ করতে না দিলেও আমরা আমাদের কাজ চালিয়ে যাবো। আজ হোক কাল হোক রোহিঙ্গা নৃশংসতার বিচার হবেই।

অর্থসূচক/কেএসআর