ভোটারের ভয়ে নির্বাচনী ব্যবস্থা ধ্বংস করেছে সরকার: ঐক্যফ্রন্ট

ভোটারদের কেন্দ্রে না যাওয়া দেশ ও জাতির জন্য অশনিসংকেত বলে মনে করছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। সেইসঙ্গে ভোটারের ভয়ে সরকার নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে বলে দাবি করেছে এই বিরোধী জোট।

আজ মঙ্গলবার (৪ ফেব্রুয়ারি) ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের মতিঝিলের চেম্বারে স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক এ সব কথা বলা হয়।

বৈঠক শেষে লিখিত বক্তব্যে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি মহসীন রশীদ বলেন, সদ্যসমাপ্ত ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সরকার, নির্বাচন কমিশন ও নির্বাচন প্রক্রিয়ার ওপর যুবসমাজ ও জনগণ অনাস্থা প্রকাশ করেছে। নির্বাচিত মেয়ররা ৫-৭ শতাংশ মানুষের রায় পেয়েছে। বাকি ফলাফল ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন-ইভিএমের জালভোট।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে গণতন্ত্র, আইনের শাসন ও নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে গেছে। সরকার চায় ভোটাররা কেন্দ্রে না যাক; সরকার ভোটারদের ভয় পায়। তাই সরকার নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে।

গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি বলেন, জনগণ ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ার অর্থ তারা মনে করে তাদের ভোটে এই সরকারের পরিবর্তন হবে না। এটা দেশ, জাতির জন্য একটা অশনিসংকেত।

এ সময় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার দুই বছরের কারাবাসের প্রতিবাদ ও তার মুক্তির দাবিতে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি রিপোর্টার্স ইউনিটিতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট প্রতিবাদ সভা করবে বলেও জানান তিনি।

ড. কামাল হোসেন সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিকল্পধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নুরুল আমিন বেপারী, গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, মোস্তাক আহমদ, নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়কারী শহিদুল্লাহ কায়সার, বিকল্পধারা বাংলাদেশে মহাসচিব শাহ আহমেদ বাদল, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দপ্তর প্রধান জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু প্রমুখ।

অর্থসূচক/কেএসআর