ইনশাআল্লাহ কিচ্ছু হবে না, আমি আসছি: পাপন
বৃহস্পতিবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ইনশাআল্লাহ কিচ্ছু হবে না, আমি আসছি: পাপন

নিরাপত্তা ইস্যুতে পাকিস্তান সফরের ভাগ্য ঝুলছিল। গেল সপ্তাহে দুই বোর্ড সমোঝতায় পৌঁছে। ২২ জানুয়ারি রাতে পাকিস্তানের বিমান ধরতে হবে বাংলাদেশ দলকে। ২৪ জানুয়ারি সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি। পাকিস্তান পৌঁছে একদিন বিশ্রাম পাবেন তামিম-মাহমুদউল্লাহ।

এদিকে মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পাকিস্তান সফরের জন্য অনুশীলন করেছে বাংলাদেশ। অনুশীলনের ১০ মিনিটের মাথায় মাঠে হাজির হন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডের ক্রিকেটারদের সঙ্গে ৮-১০ মিনিট আলাদা করে আলাপ করেছেন পাকিস্তান যাওয়া নিয়ে। দলের সঙ্গে যেতে না পারলেও বিসিবি সভাপতি খেলোয়াড়দের সাহস দিয়েছেন সেখানে যাওয়া নিয়ে।

জানা গেছে, পাকিস্তান যেতে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটারদের জন্য বিশেষ বিমানের ব্যবস্থা করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিসিবি। কোন বিমানে পাকিস্তান যাবে বাংলাদেশ দল, সেটা এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

দলকে নিরাপত্তা নিয়ে দুশ্চিন্তা করতে মানা করেছেন নাজমুল হাসান। বিসিবি সভাপতির পাশাপাশি কয়েকজন পরিচালক ও টিম ম্যানেজমেন্টের সদস্যরা পাকিস্তান যাচ্ছেন। পাকিস্তান যাওয়া নিয়ে বিসিবি সভাপতি পাপন বলেন, আমার আবার ইমার্জেন্সি ২০ জানুয়ারি রাতে একটু দেশের বাইরে যেতে হচ্ছে। আবার আমি চলে আসব ২২ তারিখে। তাই আমি ওদের সাথে যেতে পারছি না। তো ওরা আবার ভাববে যে আমি আবার অন্য কোথাও চলে যাচ্ছি। আমি বলছি যে, আমি ২৩ তারিখ ওখানে গিয়ে তোমাদের সাথে দেখা করব। নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। টি-টোয়েন্টি চাপের খেলা। প্রতি সেকেন্ডে, প্রতি বলে খেলা ঘুরে যায়। তো এটাই ওদের বললাম যে ঠাণ্ডা মাথায় খেলবে। ইনশাআল্লাহ কিচ্ছু হবে না। আমি আসছি। একসাথে থাকব, একসাথে খাব। কোনো অসুবিধা নেই।

২৪ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি। ২৫ এবং ২৭ জানুয়ারি একই ভেন্যু লাহোরে সিরিজের বাকি দুই ম্যাচ খেলে দেশে ফিরবে বাংলাদেশ। ফেরার ১০ দিন দল পর বাংলাদেশ দল আবারও পাকিস্তান যাবে একটি টেস্ট খেলতে। সিরিজের তৃতীয়ভাগ অনুষ্ঠিত হবে এপ্রিলে। যেখানে একটি টেস্ট এবং একটি ওয়ানডে খেলবে দুই দল।

অর্থসূচক/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ