ArthoSuchak
বুধবার, ৮ই এপ্রিল, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

রেকর্ডের দিনে হতভাগা চার

টানা দরপতনে ম্রিয়মান পুঁজিবাজার হঠাৎ ঝলক দেখিয়েছে আজ। সঙ্কট উত্তরণ তথা বাজারে স্বাভাবিক গতি ফেরাতে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বিভিন্ন নির্দেশনায় যেন হালে পানি পেয়েছেন বিধ্বস্ত বিনিয়োগকারীরা। রুদ্ধশ্বাস অবস্থা থেকে হঠাৎ মুক্তির আশাবাদের প্রভাবে আজ ১৯ জানুয়ারি, রোববার মূল্যসূচক বৃদ্ধির রেকর্ড হয়েছে। আজ ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ২৩২ পয়েন্ট বা ৫ দশমিক ৫৯ শতাংশ বেড়েছে, যা একদিনে এই সূচকের সর্বোচ্চ বৃদ্ধির রেকর্ড।

আজ ডিএসইতে তালিকাভুক্ত ৩৫৬ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে ৩৪৯টির শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। কমেছে মাত্র ৪টির দাম। এর মধ্যে ৩টি কোম্পানি ও ১টি মিউচুয়াল ফান্ড রয়েছে।

Badluck.jpg

ডিএসইর পরিসংখ্যান অনুসারে, আলোচিত চার কোম্পানির মধ্যে সবচেয়ে বেশি দর হারিয়েছে এসএস স্টিলের শেয়ার, যার পরিমাণ ৭ দশমিক ৫০ শতাংশ। গত বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির শেয়ারের ক্লোজিং মূল্য ছিল ১৬ টাকা, আজ এর ক্লোজিং মূল্য দাঁড়ায় ১৪ টাকা ৮০ পয়সা, যা আগের দিনের চেয়ে ১ টাকা ২০ পয়সা কম।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দর হারানো কোম্পানিটি হচ্ছে স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক। এই কোম্পানির শেয়ারের দাম ১৪ টাকা বা ২ দশমিক ২৯ শতাংশ কমে ৬১১ টাকা থেকে ৫৯৭ টাকায় নেমেছে।

শেয়ারের দর হারানো তৃতীয় কোম্পানিটি হচ্ছে প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। এই কোম্পানির শেয়ারের দাম ১১৯ টাকা ৭০ পয়সা থেকে কমে ১১৮ টাকা ৩০ পয়সা হয়েছে। শেয়ারটির দাম কমেছে ১ টাকা ৪০ পয়সা বা ১ দশমিক ১৬ শতাংশ।

ইউনিটের দর হারানো একমাত্র মিউচুয়াল ফান্ডটি হচ্ছে এলআর গ্লোবাল মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ান। এই ফান্ডের ইউনিটের দাম ১০ পয়সা কমে ৬ টাকা ৮০ পয়সা থেকে ৬ টাকা ৭০ পয়সা হয়েছে।

এদিকে আজ ২টি কোম্পানির শেয়ারের দাম ছিল অপরিবর্তিত। এই দুটি কোম্পানির শেয়ারের ক্লোজিং মূল্য ছিল আগের সমান। কোম্পানি দুটি হচ্ছে- ঢাকা ডায়িং (শেয়ারের দাম ৩ টাকা ৩০ পয়সা) ও অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ (শেয়ারের দাম ৯ টাকা ২০ পয়সা)।

যে কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দাম কমেছে ও অপরিবর্তিত রয়েছে, তার সবগুলোই দুর্বল মৌলভিত্তির কোম্পানি। তবে আজ সর্বোচ্চ মূল্য বৃদ্ধিতে শীর্ষ ২ কোম্পানিও দুর্বল মৌলের কোম্পানি হিসেবেই পরিচিত।

বাজারে ইতিবাচক আবহ তৈরি হয়েছে বলেই, ভাল-মন্দ সব শেয়ারের দাম একইভাবে বাড়া উচিত নয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, দুর্বল মৌলের শেয়ার কেনার আগে  ভালভাবে একবার ভেবে নেওয়া উচিত বিনিয়োগকারীদের।

এই বিভাগের আরো সংবাদ