৫ বছর পর ছক্কা মেরে জিতল ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শুক্রবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

৫ বছর পর ছক্কা মেরে জিতল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

জিততে শেষ ওভারে ৫ রানের প্রয়োজন ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের, আর আয়ারল্যান্ডের প্রয়োজন ১ উইকেট। প্রথম ৪ বলে ৩ রান নিয়ে ম্যাচের উত্তেজনা বাড়িয়ে দিলেন শেলডন কটরেল এবং হেইডেন ওয়ালশ।

শেষ দুই বলে ২ রান দরকার ক্যারিবিয়ানদের এমন শ্বাসরুদ্ধকর পরিস্থিতিতে ওভারের পঞ্চম বলে কাভারের উপর দিয়ে ছক্কা মেরে বসেন কটরেল। ১ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল কাইরন পোলার্ডের দল। সঙ্গে ৫ বছরের আক্ষেপ ঘুচাল ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

আইরিশদের তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ এক ম্যাচ বাকি থেকেই হারিয়ে ঘরের মাঠে ৫ বছর পর ওয়ানডে সিরিজ জিতল ক্যারিবিয়ানরা। ২০১৪ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে শেষবারের মতো ৩-০ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ যেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বার্বাডোসে এদিন টসে জিতে আগে ব্যাটিং নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোলারদের পুরো ৫০ ওভার মোকাবিলা করে আয়ারল্যান্ড। স্বাগতিকদের সামনের ২৩৮ রানের লক্ষ্য দেয় নতুন অধিনায়ক অ্যান্ডি বালবিরনির অধীনে আইরিশরা। ম্যাচটি জমিয়ে দিয়ে ১ বল আগে যেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

লক্ষ্য তাড়ায় শুরুতেই আইরিশ বোলারদের তোপের মুখে পড়ে স্বাগতিকরা। মাত্র ২৪ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে তারা। সেখান থেকে দলকে স্বপ্ন দেখান শেই হোপ এবং নিকোলাস পুরান। কিন্তু উইকেটে থিতু হয়েও হাত খোলার আগেই সাজঘরে ফিরতে হয়েছে হোপকে। ৫৪ বলে ২৫ রান করেছেন তিনি।

অধিনায়ক পোলার্ডকে নিয়ে দলকে লক্ষ্যের দিকে নিতে থাকেন পুরান। এর মাঝে ৩৯ বলে নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। ইনিংস বড় করার আগেই তাঁকে সাজঘরে পাঠান আইরিশ অফ স্পিনার সিমি সিং। ৪৪ বলে ৫২ রান করেন পুরান। পোলার্ডও ফিরে যান ৩২ বলে ৪০ রানের ইনিংসে খেলে।

এরপর আরও দুই উইকেট হারিয়ে আবারো বিপদে পড়ে স্বাগতিকরা। জয়ের স্বপ্ন প্রায় নিভে যাওয়ার পথে। সেখান থেকে দলকে আশার আলো দেখান হেইডেন ওয়ালশ। এক প্রান্ত আগলে ধরে ৬৭ বলে ৪৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন তিনি। কিন্তু শেষের দিকে এসে খেই হারিয়ে ফেলেন এই অলরাউন্ডার। দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছান শেলডন কটরেল।

এর আগে ব্যাটিং করে ২৩৭ রান সংগ্রহ করে আয়ারল্যান্ড। সেখানে দলকে ভালো শুরু এনে দেন ওপেনার পল স্টার্লিং। যদি অপরপ্রান্ত দিয়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে তারা, এক প্রান্ত ধরে রেখে দলের রান বাড়াতে থাকেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। ৭৯ বলে ৬৩ রানের ইনিংস খেলে আউট হন স্টার্লিং। মিডল অর্ডারে দলের খাতায় কিছু রান যোগ করেন উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড এবং কেবিন ও’ ব্রায়ান। ২৯ রান করেন পোর্টারফিল্ড এবং ৩১ রান করেন ও’ ব্রায়ান।

লোয়ার মিডল অর্ডারে সিমি সিং খেলেন ৩৪ রানের দারুণ এক ইনিংস। শেষের ব্যাটসম্যানদের ছোট ছোট রানে লড়াই করার পুঁজি দাঁড় করায় আইরিশরা। সফরকারীদের ব্যাটিং লাইন আপে ধস নামান আলজারি জোসেফ। তিনি একাই ৪ উইকেট তুলে নেন। ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সর্বোচ্চ সংগ্রাহক তিনি। এ ছাড়া তিনটি উইকেট পেয়েছেন শেলডল কটরেল। সফরকারীদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন সিমি সিং। দুটি করে উইকেট নিয়েছেন অ্যান্ডি ম্যাকব্রিন এবং ব্যারি ম্যাককার্থি।

অর্থসূচক/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ