২৮ লাখ টাকা দামের ঘড়ি পরেন ওবায়দুল কাদের!
মঙ্গলবার, ৭ই জুলাই, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

২৮ লাখ টাকা দামের ঘড়ি পরেন ওবায়দুল কাদের!

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের হাতের ঘড়ির মূল্য প্রায় ৩৪ হাজার মার্কিন ডলার। বাংলাদেশী মুদ্রায় রোলেক্সের সেই ঘড়িটির বাজার মূল্য প্রায় ২৮ লাখ টাকা, এমনটাই দাবি করা হয়েছে সুইডিশ একটি গণমাধ্যমের খবরে।

সাংবাদিকরা এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সেই ঘড়িটি উপহারের।

আজ বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে সচিবালয়ের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এই তথ্য জানান।

ঘড়ির প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমার ঘড়ি, টাই, স্যুট, প্যান্ট-সবই উপহারের। এগুলো আমি  নিজের টাকায় কিনি না। কেউ না কেউ এসব উপহার দিয়েছে বিভিন্ন সময়। গতকালও একজন আমাকে তিনটি কটি (পোশাক) উপহার দিয়েছে।

কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরাতে প্রকাশিত এক খবরের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ঘড়িসহ অন্য সবকিছুই উপহারের। কাজেই আল-জাজিরাসহ যারা ওই সংবাদটি প্রচার করেছে, তারা কিসের ভিত্তিতে করেছে, আমার জানা নেই। এটি তাদের বিষয়।

প্রসঙ্গত, সুইডেন ভিত্তিক নিউজ সাইট ‘নেট্রা নিউজ’ এর ২৬ ডিসেম্বরের এক সংবাদে দাবি করা হয় ওবায়দুল কাদেরের হাতের ঘড়িটির দাম তার বার্ষিক আয়ের সমান। এই খবর প্রকাশের ৭২ ঘণ্টা পর থেকে ওয়েবসাইটটি বাংলাদেশ থেকে দেখা যাচ্ছে না। ওয়েবসাইট বন্ধে করে দেওয়া এবং ঘড়ি প্রসঙ্গে বিস্তারিত খবর প্রকাশ করে আল-জাজিরা।

নির্বাচন কমিশনে দাখিল করা সবশেষ হলফনামায় দেখা যায়, ওবায়দুল কাদেরের বার্ষিক আয় ৩১ লাখ ১৭ হাজার ৬৫১ টাকা। এর মধ্যে বাড়িভাড়া/এপার্টমেন্ট/দোকান বা অন্যান্য ভাড়া থেকে বছরে আয় ১৩ লাখ ৬৮ হাজার, পেশা (শিক্ষকতা, চিকিৎসা, আইন, পরামর্শক ইত্যাদি) ১২ লাখ ৬০ হাজার, বই লিখে আয় ৪ লাখ ৮৯ হাজার ৬৫১ টাকা। ফলে ওবায়দুল কাদেরের হাতে থাকা ঘড়িটির মূল্য তার বার্ষিক আয়ের প্রায় সমান।

নেট্রা নিউজের বরাত দিয়ে আল জাজিরা লিখেছে, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রীর যে শুধু দামি রোলেক্স ঘড়িই আছে, তা নয়। বিশ্বের নামকরা আরও কিছু ব্র্যান্ডের দামি ঘড়ি রয়েছে তার সংগ্রহে। এসব ব্র্যান্ডের মধ্যে রয়েছে-Louis Vuitton, and Ulysse Nardin.

এদিকে ওবায়দুল কাদেরের ঘড়ির বিষয়টি নিয়ে নানামুখী আলোচনা চলছে নেটিজেনদের মধ্যে। কোনো উদ্দেশ্য ছাড়া কেউ ২৮ লাখ টাকা মূল্যের একটি ঘড়ি উপহার দিয়েছেন-এটি প্রায় কেউ-ই বিশ্বাস করছেন না। তাছাড়া কেউ দিলেই এমন দামি একটি উপহার নেওয়া নৈতিক বা শোভন কি-না তা নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন অনেকে।

সহজসরল জীবনযাপনে অভ্যস্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বিলাসিতা এবং জৌলুস পছন্দ করেন না। ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান শুরুর আগে তিনি কিছু যুগলীগ নেতার বিলাসী জীবন ও সম্পদের বাড়াবাড়ি রকম প্রদর্শনীতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন। এছাড়া তিনি ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক কয়েকজন নেতার আয়েসী ও বিলাসী জীবনযাপন নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন। তাই ২৮ লাখ টাকা দামের ঘড়ির প্রদর্শনী তার জন্য বেশ বিব্রতকর হতে পারে বলে অনেকেই মনে করছেন।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ