যেসব পানীয় ডায়েটে রাখা প্রয়োজন
বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

যেসব পানীয় ডায়েটে রাখা প্রয়োজন

কাজের চাপ, অনিয়মিত খাওয়া-দাওয়া, অস্বাস্থ্যকর জীবনের ফল পড়ে রক্তে। নিয়ম অনিয়ম সামলাতে সামলাতে সেখানে জমতে থাকে ক্ষতিকর চর্বি ও চিনি। ফলস্বরূপ বাড়তে থাকে ট্রাইগ্লিসারাইড, ব্লাড সুগার, খারাপ কোলেস্টেরল (এলডিএল)। হার্টের উপর এর প্রভাব খুব মারাত্মক। আজকাল বয়স ৩০ পার হলেই লিপিড-প্রোফাইল, কিডনি ফাংশন, ডায়াবিটিসের মতো কিছু দরকারি পরীক্ষা প্রতি ৬ মাস পর পর করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।

সুস্থ থাকতে নিত্য অনিয়মে রাশ টানতে তো হবেই। সঙ্গে ডায়েটে রাখতে হবে এমন কিছু খাবার, যা শরীরের টক্সিন তাড়াবে দ্রুত। হার্ট সুস্থ রাখতে ট্রাইগ্লিসারাইড, কোলেস্টেরলকে নিয়ন্ত্রণে রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ। একটু শরীরচর্চা, বাইরের খাবার রাশ টানার সঙ্গে প্রতিদিন ডায়েটে রাখুন এই পানীয়। হার্ট সুস্থ রাখতে এর জুড়ি নেই।

কী কী উপাদান প্রয়োজন, কী ভাবেই বা বানাবেন? রইল তার উপায়

অ্যাপেল সিডার ভিনিগার, লেবুর রস, আদা-রসুন থেঁতো ও মধু দিয়েই বানিয়ে ফেলতে পারেন এই পানীয়। সবরকম উপকরণ একসঙ্গে ব্লেন্ডারে মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। কাচের জারে ঢেলে রাখুন। দিনে তিন বার যে কোনও বড় খাবার খাওয়ার আগে আধ কাপ জলের সঙ্গে মিশিয়ে চার-পাঁচ চামচ এই মিশ্রণ মিশিয়ে খেয়ে নিন।

অ্যাপেল সিডার ভিনিগার যেমন কোলেস্টেরলও ট্রাইগ্লিসারাইডের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে তেমনই রক্তে শর্করার মাত্রাও কমায়। আদা ও রসুনও রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। মধু রক্তবাহে কোলেস্টেরল জমতে বাধা দেয়। ফলে এই মিশ্রণের প্রভাবে হার্টের ক্ষতি অনেকটাই রুখে দেওয়া যায়। তবে এর সঙ্গে অবশ্যই দরকারি শরীরচর্চা ও তেল-মশলা বাদ দেওয়া ডায়েট রপ্ত করা উচিত।

অর্থসূচক/এনএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ