হজ নিয়ে কটূক্তি: ভৈরবে পীরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ
শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০২০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

হজ নিয়ে কটূক্তি: ভৈরবে পীরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

‘আল্লাহ গো, ওমরা করতে যাগা। তোর বাপ লাগেনি ওমরা ? মক্কায় না গিয়ে ভৈরবের গুল-এ মদিনা দরবারে গেলেই হজের সওয়াব পাবে এবং তোদের গুনাহ মাফ হয়ে যাবে। দরবারে ঢুকলেই মানুষের গুনাহ মাফ হয়, আশা পূরণ হবে, অভাব থাকবে না। দরবার হলো গুনাহ মাফের কেন্দ্র। আল্লাহ-রাসূল থাহে। মুর্শিদের টিকিট ছাড়া কবরে গেলে খবর আছে।’

পবিত্র হজ নিয়ে এমন কটূক্তি এবং নিজের আস্তানা সম্পর্কে বাড়াবাড়ি রকম বক্তব্য দেওয়ায় কিশোরগঞ্জের ভৈরবের উমানাথপুর গুলে মদিনা দরবার শরীফের পীর আবুল বাশার আলকাদরীকে গ্রেপ্তার দাবিতে সমাবেশ, প্রতিবাদ সভা, বিক্ষোভ মিছিলসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন তৌহিদী জনতার ব্যানারে আলেম-ওলামাসহ সাধারণ ধর্মপ্রাণ মুসলিম জনতা।

আজ রোববার সকালে উপজেলার বিভিন্ন মাদ্রাসা, মসজিদের মুসল্লি ও ধর্মপ্রাণ মুসলিমদের নেতৃত্বে মিছিল এসে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন ওয়ালটন শো-রুমের সামনে মিলিত হয়। এ সময় লাখোকণ্ঠে আবুল বাশার বিরোধী স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা।

সমাবেশে ভৈরব বাজার জামে মসজিদের খতিব হজরত মাওলানা জামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, খতিব, মাদ্রাসার অধ্যক্ষসহ আলেম-ওলামারা বক্তব্য রাখেন। এ সময় তারা অবিলম্বে আবুল বাশারকে গ্রেপ্তার করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান। অন্যথায় পরবর্তীতে তারা আরও কঠিন কর্মসূচি গ্রহণ করবেন বলেও হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

পরে দুপুর ১২টার দিকে সেখান থেকে বের হওয়া একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-ভৈরব-ময়মনসিংহ মহাসড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ চত্বরে যায়। সেখানে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে স্মারকলিপি পেশ করা হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার আগানগর ইউনিয়নের উমানাথপুর গ্রামের গুল-এ মদিনা দরবার শরীফের কথিত পীর আবুল বাশার আলকাদরীর বিরুদ্ধে ভৈরব পৌর শহরের ভৈরবপুর গাছতলাঘাট এলাকার অধিবাসী অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম মামুন একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে তিনি অভিযোগ করেন, গত কয়েকদিন আগে ওই পীর হবিগঞ্জের একটি ওয়াজ মাহফিলে পবিত্র হজসহ ইসলামি অনুশাসনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মনগড়া, মিথ্যা, ভিত্তিহীন এবং ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত করে এমন সব বিষয় উল্লেখ করে বক্তব্য রাখেন। সেই বক্তব্য সহীহ সুন্নাহ নামে একটি ইউটিউব একাউন্ট থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়। প্রচারিত এই বক্তব্য তাকেসহ ধর্মপ্রাণ মুসলিমদের সংক্ষুব্ধ করে।

অর্থসূচক/এমএ/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ