ArthoSuchak
শনিবার, ২৮শে মার্চ, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

পাঁচ মিনিটে কমবে মেদ, দূর হবে অসুখ!

বেশি নয়, সময় দিতে হবে মাত্র পাঁচ মিনিট। তাতেই দূর হবে রোগবালাই এবং কমবে মেদ।

সময় করে ঘণ্টার পর ঘণ্টা জিমে কসরত করা বা ঘরে-বাইরে দায়িত্ব সামলে সকাল-বিকেল শরীরচর্চার জন্য ব্যয় করা এই কর্মব্যস্ততার যুগে অনেকের কাছেই বিলাসিতা। শরীরের প্রয়োজন, রোগব্যাধির ওষুধ, ভাল থাকার পাসওয়ার্ড— এ সব জানার পরেও সেই দাঁড়িপাল্লায় কম পড়ে যায় শরীরের জন্য খরচ করার মতো সময়। এর সঙ্গে যোগ হয় অসময়ে খাওয়া, ভুল খাবার নির্বাচন, কম ঘুমের মতো শত্রুরা।

তবে পুষ্টিবিদদের মতে, রোজ অনেকটা সময় না পেলেও অন্তত ৫-১০ মিনিট সময় বার করে রাখুন নিজের জন্য। পাঁচ মিনিটের দৌড়ও শরীরের যা যা উপকার করতে পারে, তা জানলে এই সময়টুকুকেই শরীরের মেরামতির জন্য বেছে নিতে পারেন স্বচ্ছন্দে।

তবে ফিটনেস বিশেষজ্ঞ চিণ্ময় রায়ের মতে, ‘পাঁচ মিনিটের দৌড়ে সাময়িক আরাম হলেও, এই ধকল এত অল্প সময় ধরে হয় যে শরীরের দীর্ঘ উপকারিতায় তা খুব কাজে লাগে না, তবে হ্যাঁ, কিছু না করার চেয়ে এই পাঁচ মিনিটের দৌড় ভাল।’ আর এক ফিটনেস বিশেষজ্ঞ সুকোমল সেন আবার একটু ভিন্ন মতের পথিক। তাঁর কথায়, ‘কাজের মাঝে উঠে কিছুটা হেঁটে আসা বা দৌড়নো মন্দ নয়, বরং চটজলদি কিছুটা স্ট্রেস কমিয়ে ফেলা যায় এতে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিতও হয় বেশ কিছুটা। এন্ডরফিন ক্ষরণে অন্তত মিনিট কুড়ির শরীরচর্চা প্রয়োজন হলেও এই মূল্যবান পাঁচ মিনিটও অনেকটাই অমূল্য হয়ে উঠতে পারে সময় না পাওয়া মানুষদের কাছে।’

শুনতে পাঁচ মিনিট হলেও পাঁচ মিনিট দৌড় নেহাত কম শ্রমের কাজ নয় কিন্তু! এর প্রভাবে শরীরে কী কী উপকার হতে পারে তা নিম্নরূপ:

মেজাজ-মর্জি
সারা দিনের কাজের চাপ, মানসিক উদ্বেগ, ডেডলাইনের চাপ সবটাই নিমেষে হাওয়া হয়ে যেতে পারে এই পাঁচ মিনিটের দৌড়ে। মানসিক স্বাস্থ্যকে তরতাজা রেখে মেজাজ-মর্জিকে ভাল রাখার অন্যতম দিক এই দৌড়। হাতে কোন বোঝা না নিয়ে পায়ে স্নিকার্স গলিয়ে গা-ঘামানো এই দৌড়ই মেজাজ প্রফুল্ল করে তুলতে পারে বলে মত ফিটনেস বিশেষজ্ঞ সুকোমল সেনেরও।

ক্যালোরি ঝরা
সারা শরীরের পেশি কাজ করে দৌড়, সাঁতার, নাচের মতো ব্যায়ামে। সেরা কার্ডিও ভাস্কুলার এক্সারসাইজের অন্যতম এই দৌড়। সারাদিন যতটা ক্যালোরি খাবারের সঙ্গে প্রবেশ করছে, সেই ক্যালোরিটুকু ঝরিয়ে ফেলতে পারলে তবেই ওজন কমে। রোজকার পাঁচ মিনিটের দৌড় সেই ক্যালোরি সবটা ঝরিয়ে দিতে পারে না ঠিকই। তবে গা-ঘামানো দৌড়ে কিছুটা পারে তো বটেই। তাই কিছু না করার চেয়ে এই পাঁচ মিনিটের দৌড় অভ্যাস করুন রোজ।

রক্তে শর্করা
রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণ করতে সপ্তাহে অন্তত ১৫০ মিনিট শরীরচর্চা আবশ্যক। সেখানে গতির সঙ্গে পাঁচ মিনিট দৌড়লেও পুরো কাজটা সারা যাবে না, তা ঠিক। তবে সপ্তাহে এই ৩৫ মিনিটের দৌড় রক্তে শর্করা জমাতেও বাধা দেবে, তাও ঠিক। যাঁরা কোনরকম শরীরচর্চার ধারকাছ দিয়ে যান না, তাঁদের চেয়ে যাঁরা অন্তত ৩৫ মিনিট এই শরীরচর্চায় অভ্যস্ত হন, তাঁরা কিছুটা বেশি লাভবান তো বটেই!

ঘুম
অনিদ্রা, কম ঘুমের কারণটাও অনেকটা এড়াতে পারেন পাঁচ মিনিটের এই দৌড়ে। শরীরে রক্ত চলাচল আগের চেয়ে বাড়ে বলে এর ফলে ঘুমও হয় ভাল।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ
প্রতি দিনের দৌড় রক্তনালীর প্রাচীরে চাপ কম রাখতেও সাহায্য করে, ফলে রক্তচাপ বাড়ে না। তবে বেশি উপকার পেতে হলে পাঁচ মিনিটটা বাড়িয়ে অন্তত কুড়ি মিনিট করলে উপকার পাবেন আরও বড় আকারে।

অর্থসূচক/এনএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ