বৃটেনে ৪ বাংলাদেশি নারীর নিরঙ্কুশ জয়
সোমবার, ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বৃটেনে ৪ বাংলাদেশি নারীর নিরঙ্কুশ জয়

সদ্য সমাপ্ত যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ৯ প্রার্থীর মধ্যে ৪ জন ব্রিটিশ নারী জয় পেয়েছেন। হ্যাম্পস্টিড থেকে টিউলিপ সিদ্দিক, বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসনে রুশনারা আলী, পপলার অ্যান্ড লাইমহাউস থেকে আফসানা বেগম ও লন্ডনের ইলিং সেন্ট্রাল ও একটন থেকে রূপা হক জয়ী হয়েছেন। তারা প্রত্যেকেই লেবার পার্টির হয়ে লড়াই করেছেন।

হ্যাম্পস্টেড এন্ড কিলবার্ন এলাকা থেকে জয় পেয়েছেন টিউলিপ সিদ্দিক। তিনি ২৮ হাজার ৮০টি ভোট পেয়েছেন। অপরদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী কনসারভেটিভ পার্টির জনি লাক পেয়েছেন ১৩ হাজার ৮৯২টি ভোট।

এর আগে ২০১৭ সালের নির্বাচনে দ্বিতীয়বারের মতো এমপি হিসেবে নির্বাচিত হন টিউলিপ। সে সময় তিনি মোট ৩৪ হাজার ৪৬৪টি ভোট পেয়েছিলেন।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রুশনারা আলী বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো থেকে জয়ী হয়েছেন। তিনি ৪৪ হাজার ৫২টি ভোট পেয়েছেন। এর আগে ২০১৭ সালে পূর্ব লন্ডনের বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসন থেকে তিনি ৪২ হাজার ৯৬৯ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছিলেন।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অপর ব্রিটিশ এমটি রূপা হক। তিনি লন্ডনের ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনে তৃতীয়বারের মতো এমপি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। রূপা হক নির্বাচনে ২৮ হাজার ১৩২ ভোট পেয়েছেন। অপরদিকে তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ প্রার্থী জুলিয়ান গেল্যান্ট পেয়েছেন ১৪ হাজার ৮৩২ ভোট। ২০১৫ সালে প্রথমবারের মতো এমপি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন রূপা।

এছাড়া আফসানা বেগম প্রথমবারের মতো যুক্তরাজ্যের নির্বাচনে এমপি হিসেবে জয়ী হলেন। তিনি ৩৮ হাজার ৬৬০টি ভোট পেয়েছেন। পূর্ব লন্ডনের পপলার অ্যান্ড লাইম হাউস আসনে আফসানার বিজয় অনেকটা সুনিশ্চিত বলে আগেই ধারণা করা হচ্ছিল। তার প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ দলের প্রার্থী পেয়েছেন ৯ হাজার ৭৫৬টি ভোট।

সর্বশেষ প্রাপ্ত ফল অনুযায়ী, ৬৫০টি আসনের মধ্যে ৬৩৫টি আসনের ভোট গণনা শেষ হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩৫৪টি আসন পেয়ে নিরঙ্কুশভাবে বিজয়ী হয়েছে কনজারভেটিভ পার্টি। এককভাবে সরকার গঠন করতে কনজারভেটিভদের প্রয়োজন ছিল ৩২৬টি আসন। এখন পর্যন্ত কনজারভেটিভরা পেয়েছে মোট ভোটের ৪৩ শতাংশেরও বেশি ভোট।

অন্যদিকে, প্রধান বিরোধীদল লেবার পার্টি পেয়েছে ২০২টি আসন। এছাড়া, স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি (এসএনপি) পেয়েছে ৪৭টি আসন এবং অন্য আরও তিনটি দল ৩২টি আসন।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ