টিআইবি পুরস্কার পেলেন দুই ইআরএফ সদস্য
সোমবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

টিআইবি পুরস্কার পেলেন দুই ইআরএফ সদস্য

ইকনোমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ) এর দুই সদস্য ফখরুল ইসলাম হারুন ও ইকবাল হাসান অনুসন্ধানী রিপোর্টের জন্য ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) পুরস্কার পেয়েছেন। এর মধ্যে ফখরুল ইসলাম প্রিন্ট মিডিয়া (জাতীয়) ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার পেয়েছেন। তিনি প্রথম আলোর বিশেষ প্রতিনিধি। অন্যদিকে চ্যানেল টুয়েন্টিফোর এর সিনিয়র রিপোর্টার ইকবাল হাসান (ইলেকট্রনিক মিডিয়া) ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার পেয়েছেন।

জানা গেছে, তিতাস গ্যাসের দুর্নীতি বিষয়ে অনুসন্ধানী রিপোর্টের জন্য ওই পুরস্কার পেয়েছেন ফখরুল ইসলাম। গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর ‘তিতাসে কেজি দরে ঘুষ’ শিরোনামে রিপোর্টটি প্রকাশিত হয়। এতে উঠে আসে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মীর মশিউর রহমানের নেতৃত্বে গড়ে উঠা একটি দুর্নীতিবাজ চক্রের খবর, যারা ব্যাপক ঘুষ লেনেদেনে যুক্ত ছিলেন। এই লেনদেনের জন্য কিছু সাংকেতিক শব্দ ব্যাবহার করতেন তারা, প্রতি ১ লাখ টাকাকে তারা ১ কেজি হিসেবে অভিহিত করতেন।

অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার জন্য টিআইবি ফখরুল ও ইকবালসহ ১১ গণমাধ্যমকর্মীকে পুরস্কৃত করে। সোমবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে মাইডাস সেন্টারের মেঘমালা কনফারেন্স রুমে এক অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমকর্মীদের ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০১৯’ দেওয়া হয়।

Fakhrul-Iqbal.jpg

পুরস্কার পাওয়া অন্য গণমাধ্যমকর্মীরা হলেন প্রিন্ট মিডিয়া (স্থানীয়) ক্যাটাগরিতে যশোরের গ্রামের কাগজ পত্রিকার বিশেষ প্রতিনিধি দেওয়ান মোর্শেদ আলম, প্রধান প্রতিবেদক এম আইউব, জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ফয়সল ইসলাম ও মোতাহার হোসাইন, নিজস্ব প্রতিবেদক এস এম আরিফ, উজ্জ্বল বিশ্বাস, মিনা বিশ্বাস এবং স্বপ্না দেবনাথ, ইলেকট্রনিক মিডিয়া (টিভি ডকুমেন্টারি) ক্যাটাগরিতে মাছরাঙা টেলিভিশনের অনুসন্ধান দল।

অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন টিআইবির ন্যায়পাল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম। তিনি বলেন, সব সাংবাদিকতাই অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা। সংবাদ তো অনুসন্ধান করেই বের করতে হয়। তাহলে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা কেন বিশেষায়িত? এর পেছনেও সংবাদ কাটতি বাড়ানোর বিষয় আছে। অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বিশেষায়িত হয়েছে প্রতিকূল অবস্থার কারণে। যদি সবকিছু অনুকূল থাকত, অর্থাৎ সরকার আদর্শিক অবস্থানে মালিকেরা, পাঠকেরা আদর্শিক অবস্থানে, তাহলে তো অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা হতো না।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক গীতি আরা নাসরীন, একাত্তর টেলিভিশনের বার্তাপ্রধান শাকিল আহমেদ, ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড রিসোর্সেস ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভের নির্বাহী পরিচালক হাসিবুর রহমান প্রমুখ।

এই বিভাগের আরো সংবাদ