বন্ধুত্বের মাধ্যমেই বাংলাদেশ-ভারত এগিয়ে যাবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
বৃহস্পতিবার, ১৩ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বন্ধুত্বের মাধ্যমেই বাংলাদেশ-ভারত এগিয়ে যাবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, দেশের জনগণের প্রত্যাশা বন্ধুপ্রতিম ভারত উভয় দেশের জনগণের মধ্যে দুশ্চিন্তা বা আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ার মতো কোনও কাজ করবে না। পরস্পর বন্ধুত্বের মাধ্যমেই বাংলাদেশ-ভারত এগিয়ে যাবে। উভয় দেশের জনগণের প্রত্যাশা পূরণ হবে।

আজ শুক্রবার জাতীয় জাদুঘরে বাংলাদেশকে ভারতের স্বীকৃতির ৪৮তম বার্ষিকী উপলক্ষে ‘মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান ও বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক’ শীর্ষক আলোচনা সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এ তথ্য জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের মুক্তিযুদ্ধে ভারতের ভূমিকা ছিল অনস্বীকার্য। মুক্তিযুদ্ধের পর থেকে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে সুসম্পর্ক তৈরি হয়েছে। এখন অনন্য উচ্চতায় আমাদের এ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। তবে দুদেশের সোনালি সম্পর্কের মধ্যেও কোনো কারণে দুশ্চিন্তা ও আতঙ্ক তৈরি না হয়, ভারতের কাছে এমনটাই আমরা প্রত্যাশা করি।

তিনি আরও বলেন, ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে তিন কোটি মানুষ ঘর ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল। এদের মধ্যে এক কোটি মানুষ আমাদের ভারতে আশ্রয় নিয়েছিল। কাজেই ভারতের অবদান ও সহযোগিতা ছাড়া আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস অসম্পূর্ণ। তবে কোনো কারণে আমাদের এ সম্পর্কে অবিশ্বাস তৈরি না হয়, সেদিকে উভয় দেশকেই খেয়াল রাখতে হবে।

ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি ও সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম এ আলোচনা সভার আয়োজন করে। বিচারপতি শামসুদ্দিন আহমেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাশ বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন।

রীভা গাঙ্গুলী দাশ বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের যে সম্পর্ক ছিল, ভবিষ্যতেও সেই সম্পর্ক অটল থাকবে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও এ সম্পর্ক বজায় রাখার বিষয়ে বেশ সচেতন। প্রধানমন্ত্রী মোদি বলেছেন, প্রতিবেশী প্রথম। আর প্রতিবেশীদের মধ্যে বাংলাদেশ সবার আগে।

অর্থসূচক/এএইচআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ