ফেসবুকে প্রেম,পালানোর পথে প্রেমিকার গয়না নিয়ে চম্পট
বৃহস্পতিবার, ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ফেসবুকে প্রেম,পালানোর পথে প্রেমিকার গয়না নিয়ে চম্পট

ফেসবুকে পরিচয়। পুলিশ পরিচয় দিয়ে এক সন্তানের জননীর সঙ্গে প্রেম। প্রেমিকাকে প্ররোচিত করে পালিয়ে যাওয়ার সময় তার গহনা নিয়ে চম্পট। তবে ভন্ড প্রেমিক শেষ পর্যন্ত ধরা খেয়েছে প্রকৃত পুলিশের হাতে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবাংলার লেকটাউনে।

FB-Theft.jpg

ছবি আনন্দবাজার পত্রিকার সৌজন্যে

খবর আনন্দবাজার পত্রিকার

জানা গেছে, চলতি বছরের আগস্ট মাসে ফেসবুকে লেকটাউনের বাসিন্দা এক গৃহবধূর সঙ্গে আলাপ হয় কথিত প্রেমিক সৌমিত্র মণ্ডলের। নিজেকে পুলিশ বলে পরিচয় দেয় সৌমিত্র। অন্য দিকে,ওই মহিলার একটি মেয়ে রয়েছে। বন্ধুত্ব থেকে ধীরে ধীরে দু’জনের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে দু’জনের। এর পর গত অক্টোবর মাসে ওই মহিলাকে পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দেয় সৌমিত্র। তাতে রাজিও হয়ে যান মহিলা।

এর পর শুরু হয় পালানোর ছক কষা। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,ওই মহিলাকে সোনাদানা ও টাকাপয়সা নিয়ে আসতে বলে সৌমিত্র। সেই মতো সপ্তাহ দুয়েক আগে এক দিন সকালে মহিলার স্বামী যখন মেয়েকে স্কুলে দিতে যান,সেই ফাঁকে সৌমিত্রর বাইকে চড়ে পালিয়ে যান তিনি।

শহরের আনন্দপুর নামরে একটি জায়গায় পৌঁছার পর সৌমিত্রের ফোনে একটি কল আসে। তখন সৌমিত্র মহিলাকে নানা অজুহাতে আনন্দপুরে দাঁড় করিয়ে রেখে কিছু ক্ষণের মধ্যেই ফিরে আসার কথা বলে। মহিলা যেহেতু পালিয়ে এসেছিলেন বাড়ি থেকে,তাই সৌমিত্রর কথামতো মোবাইলও বন্ধ করে তার কাছে দেন।

আনন্দপুরে মহিলাকে রেখে সৌমিত্র যে গিয়েছিল,তার পর আর ফেরেনি। তার পর দীর্ঘক্ষণ ওই এলাকায় ইতস্তত ঘুরতে দেখে মহিলাকে উদ্ধার করেন। পুলিশের কাছে সব কথা খুলে বলেন তিনি। এ নিয়ে গত ১৬ নভেম্বর লেকটাউন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই মহিলা। তার পরেই পুলিশ সৌমিত্রর খোঁজে তল্লাশি শুরু করে।

তবে ভারতে এমন ঘটনা একেবারে নতুন নয়। বরং হরহামেশাই ঘটছে। এর আগে ফেসবুকে প্রেমের সূত্র ধরে বাসায় এনে প্রেমিকাকে ধর্ষণ করা, প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করার অজুহাতে তার বাসায় গিয়ে ডাকাতি করাসহ নানা ধরনের অপরাধমূলক ঘটনা ঘটেছে দেশটিতে।

এমন দুয়েকটি ঘটনার উদাহরণ অবশ্য বাংলাদেশেও আছে। আর এ কারণ পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে অপরিচিত কাউকে ফেসবুকে যুক্ত না করা, ফেসবুকে একান্ত ব্যক্তিগত তথ্য ও পরিবারের সদস্যদের ছবি না দেওয়া, কথিত ফেসবুক বন্ধুকে অন্ধভাবে বিশ্বাস না করাসহ সব বিষয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়া হয় নিয়মিত।

এই বিভাগের আরো সংবাদ