জলবায়ু ও পরিবেশবান্ধব প্রকল্প অর্থায়নে 'গ্রীন বন্ড' ভূমিকা রাখবে
শুক্রবার, ২৪শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

জলবায়ু ও পরিবেশবান্ধব প্রকল্প অর্থায়নে ‘গ্রীন বন্ড’ ভূমিকা রাখবে

দেশের জলবায়ু ও পরিবেশবান্ধব বিভিন্ন প্রকল্পে অর্থায়নের উৎস হিসেবে গ্রীন বন্ড ভূমিকা রাখবে বলে জানান অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম।

আজ বুধবার বাংলাদেশ সিকিউরিটিড অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ‘গ্রীণ বন্ডের পরিচিতি’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

সচিব বলেন, গ্রীন বন্ড ইস্যুর ক্ষেত্রে দক্ষ জনশক্তিসহ পর্যাপ্ত অবকাঠামোর অভাব রয়েছে। তাই এ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নিয়ন্ত্রনকারী সংস্থা, পলিসি মেকার, ইস্যুয়ার কোম্পানি, স্টক এক্সচেঞ্জ, ব্যাংক, নন-ব্যাংক ফিন্যান্সিয়াল ইন্সটিটিউট, মার্চেন্ট ব্যাংক ও এ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানিগুলোকে শেয়ারহোল্ডারদের নিয়ে কাজ করতে হবে। এজন্য বাংলাদেশ একাডেমি ফর সিকিউরিটিজ মার্কেটস (বিএএসএম) নিয়মিত আরো প্রশিক্ষন কর্মসূচীর আয়োজন করবে বলে তিনি আশা করেন।

বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম খায়রুল হোসেন বলেছেন, শেয়ারবাজারে ২২১টি ট্রেজারি বন্ড আছে, সেগুলো তালিকাভুক্ত। তবে সেগুলো মার্কেটেবল না এবং লেনদেনও হচ্ছে না। এগুলোকে লেনদেনযোগ্য করার জন্য কাজ চলছে। শিগগিরই ২২১টি বন্ডকে লেনদেনযোগ্য করা হবে।

বিএএসএমর মহাপরিচালক মাহবুব আলম গ্রীন বন্ড সম্পর্কে ধারণা দিয়ে বলেন, গ্রীন বন্ড ইস্যুর ক্ষেত্রে অন্য বন্ডের মতই নিয়ম মেনে ইস্যু করতে হয়। তবে গ্রীন বন্ড শুধু জলবায়ু ও পরিবেশবান্ধেবের জন্য কাজ হবে সে সব প্রজেক্টে বিনিয়োগযোগ্য হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম। এ সময় বাংলাদেশ একাডেমি ফর সিকিউরিটিজ মার্কেটের মহাপরিচালক মাহবুব আলমসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিএসইসির পরিচালক মো. রেজাউল করিম।

এই বিভাগের আরো সংবাদ