লবণ ইস্যুতে অ্যাকশনে পুলিশ
সোমবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

লবণ ইস্যুতে অ্যাকশনে পুলিশ

দেশে লবণের কৃত্রিম সংকট তৈরি করে যাতে কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে তাই পুলিশ সদস্যদের দোকানে দোকানে গিয়ে তল্লাশি চালানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (অপারেশন) মনিরুল ইসলাম ওয়ারলেসে পুলিশ সদস্যদের এই নির্দেশ দেন। ডিএমপির একাধিক ওসি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নির্দেশনা পেয়ে পুলিশ সদস্যরা বিভিন্ন দোকানে গিয়ে লবণের মজুতের খোঁজখবর নিচ্ছেন।

এদিকে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বেশি দামে লবণ বিক্রির খবরে রাজধানীর নয়াবাজার ও নাজিরা বাজারে অভিযান চালিয়েছে ডিএমপির ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, নয়াবাজারে বেশি দামে লবণ বিক্রির সত্যতা পাওয়া গেছে। ৩৫ টাকার লবণ ৭০-৮০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। অভিযানে নয়াবাজারের তিন ব্যবসায়ীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সেখান থেকে নাজিরা বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে বলেও জানান ম্যাজিস্ট্রেট।

এছাড়া, এদিন সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন বিভাগীয়, জেলা ও মহানগর এলাকায় পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতার পর সন্ধ্যায় পুনরায় নির্ধারিত দামে লবণ বিক্রি করতে শুরু করেছেন ব্যবসায়ীরা।

এদিকে, লবণের দাম বেশি নেওয়ায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর আজ ঢাকা জেলা ও ঢাকা মহানগরে অভিযান পরিচালনা করেছে। প্রতিষ্ঠানটির সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মণ্ডল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গুজবের ব্যাপারে সচেতন থাকতে পুলিশের মাইকিং তিনি বলেন,  ‘ঢাকা জেলার আশুলিয়া ও সাভার থানা এলাকায় অভিযান পরিচালিত হয়েছে। এ সময় কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে বেশি দামে পণ্য বিক্রি করার অপরাধে জরিমানা করা হয়েছে। দুটি প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সাভারের শিহাব স্টোর (১ ও ২) নামে দুটি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার করে এক লাখ টাকা জরিমানা এবং প্রতিষ্ঠান দুটি সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া হয়। একই এলাকার আরও দুটি প্রতিষ্ঠানকে ১০ ও ১৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। এছাড়াও আশুলিয়ার দুটি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার, ঢাকা মহানগরের দুটিকে ৩০ হাজার এবং যাত্রাবাড়ীর চারটি দোকানকে ১১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।’

৯৯৯-এ ফোন দিয়ে জানানোর অনুরোধ পুলিশের

দেশে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রি করা হচ্ছে। এ বিষয়ে বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি সোচ্চার হয়েছে পুলিশ হেড কোয়ার্টার্সও। দেশের কোথাও লবণের অতিরিক্ত দাম চাইলে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল দিয়ে তাৎক্ষণিকভাবে জানানোর অনুরোধ জানিয়েছে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এক প্রেসনোটে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি, মিডিয়া) মো. সোহেল রানা।

তিনি বলেন, ‘লবণের দাম বেড়েছে–এমন গুজব ছড়িয়ে একটি স্বার্থান্বেষী মহল জনমনে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে। ইতোমধ্যে বাণিজ্য ও তথ্য মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে যে, দেশে ছয় লাখ টন লবণ মজুত রয়েছে। এটা আমাদের চাহিদার তুলনায় অনেক বেশি। তাই লবণের দাম বাড়ার কোনও সম্ভাবনা নেই। তাই, জনসাধারণকে গুজবে কান না দিতে ও বিভ্রান্ত না হতে পুলিশের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হচ্ছে।’

অর্থসূচক/এমএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ