রিং শাইনকে ডিএসইতে তালিকাভুক্তির সিদ্ধান্ত
সোমবার, ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

রিং শাইনকে ডিএসইতে তালিকাভুক্তির সিদ্ধান্ত

পুঁজিবাজার থেকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের মাধ্যমে অর্থ উত্তোলনকারী প্রতিষ্ঠান রিং শাইন টেক্সটাইল লিমিটেডকে তালিকাভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালনা পর্ষদ। আজ ১৮ নভেম্বর, রোববার অনুষ্ঠিত পর্ষদের সভায় বিষয়টি অনুমোদন করা হয়েছে।

ডিএসই সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

পর্ষদের অনুমোদন পাওয়ায় রিং শাইনের শেয়ার লেনদেন শুরুর প্রক্রিয়া প্রায় শেষ হয়ে এসেছে। এখন ডিএসইর ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেনের তারিখ নির্ধারণ করবে।  জানা গেছে, চলতি সপ্তাহের যে কোনো দিন কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন শুরু হতে পারে।

Ring-Shine-Logo.jpg

রিং শাইন টেক্সটাইল আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। কোম্পানিটি আইপিওর মাধ্যমে সংগৃহীত অর্থ  সাবস্ক্রিপশন চলতে থাকা রিং শাইন টেক্সটাইলস লিমিটেড ব্যবসা বহুমুখী করবে। সুতা উৎপাদন, সুতা রং করা ও সাধারণ কাপড় (Fabrics) উৎপাদনের পাশাপাশি কোম্পানিটি ডেনিম কাপড় (সাধারণভাবে জিন্স হিসেবে পরিচিত) উৎপাদন করবে। আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে সংগ্রহ করা অর্থের একটি অংশ ডেনিম কারখানা স্থাপনে বিনিয়োগ করা হবে।

উত্তোলিত অর্থ থেকে কোম্পানিটি ৯৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা তারা ডেনিম ইউনিটে বিনিয়োগ করবে, ৫০ কোটি টাকা ব্যয় হবে ব্যাংকঋণ পরিশোধে আর ৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা আইপিও প্রক্রিয়ার ব্যয় নির্বাহে খরচ করবে কোম্পানিটি।

আরও পড়ুন:-আইন ভেঙ্গে দুই কোম্পানির লভ্যাংশ ঘোষণা, তথ্য চেয়েছে বিএসইসি

এর আগে, গত ২৯ জুলাই বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) থেকে কনসেন্ট লেটার পায় কোম্পানিটি। তার পরেই কোম্পানিটি তাদের আইপিও আবেদন শুরুর তারিখ আগামী ২৫ আগস্ট নির্ধারণ করেন।

বিএসইসির ৬৭৯তম কমিশন সভায় কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়। রিং সাইন টেক্সটাইল শেয়ারবাজারে ১৫ কোটি সাধারণ শেয়ার ছেড়ে ১৫০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। উত্তোলিত অর্থ দিয়ে কোম্পানিটি যন্ত্রপাতি ও কলকব্জা ক্রয়, ঋণ পরিশোধ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী কোম্পানিটির ভারিত গড় হারে শেয়ার প্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৮৬ পয়সা এবং পুনমূল্যায়ন ব্যতিত শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ২৩ টাকা ১৭ পয়সা। এবং আইপিও লাটারির সাম্ভব্য তারিখ আগামী ১লা অক্টোবর নির্ধারণ করা হয়েছে।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং সিএপিএম এডভাইজরি লিমিটেড।

এই বিভাগের আরো সংবাদ