মেলার তৃতীয় দিনে ২৬২ কোটি টাকা কর আদায়
মঙ্গলবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

মেলার তৃতীয় দিনে ২৬২ কোটি টাকা কর আদায়

রাজধানীসহ দেশব্যাপী শুরু হয়েছে সপ্তাহব্যাপী ‘জাতীয় আয়কর মেলা ২০১৯’। গত বৃহস্পতিবার মেলার শুভ উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।দেশের আটটি বিভাগ, ৫৬টি জেলা, ৫৬টি উপজেলাসহ মোট ১২০টি জায়গায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবারের আয়কর মেলা।

দেশের সবচেয়ে বড় আয়কর মেলা হচ্ছে রাজধানীর বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে। আজ শনিবার তৃতীয় দিন শেষে সারাদেশব্যাপী মোট আয় কর আদায় হয়েছে ২৬২ কোটি ২ লাখ ৯২ হাজার ২৫১ টাকা।

মেলায় প্রথম দিনে মোট আয়কর সংগ্রহ হয়েছিল ৩২৩ কোটি ১৮ লাখ টাকা। দ্বিতীয় দিনে হয়েছিল ৪৭৯ কোটি ১ লাখ ২৮ হাজার ৭৯৭ টাকা। অর্থাৎ সারাদেশে মেলায় আজ তৃতীয় দিন পর্যন্ত মোট আদায় হয়েছে ১ হাজার ৬৪ কোটি ২৩ লাখ ১৪ হাজার ৯৩৩ টাকা।

এছাড়া, আজ তৃতীয় দিনে সারাদেশে আইকর মেলা থেকে সেবা নিয়েছে ২ লাখ ৭১ হাজার ৯৪০ জন। আর এই তিনদিনে মেলা থেকে মোট সেবা নিয়েছে ৬ লাখ ৭৬ হাজার ৪৪২ জন। এরমধ্যে আজ রিটার্ন দাখিল করেছে ৭৩ হাজার ৩৮২ জন। তৃতীয় দিনে রিটার্ন দাখিল করেছে ৮৪ হাজার ৫৩৪ জন আর এই তিন দিনে মেলায় রিটার্ন দাখিল করেছে ২ লাখ ২১ হাজার ৬৪৯ জন এবং তিনদিনে মেলা থেকে নতুন টিআইএন নিবন্ধন করেছে ১১ হাজার ৯৭৯ জন।

আজ শনিবার দেশব্যাপী আয়কর মেলা তৃতীয় দিন শেষে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের পক্ষ থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

কর মেলা নিয়ে করদাতাদের মধ্যে প্রতিবছরই ব্যাপক আগ্রহ দেখা যায়। এবার এর ব্যতিক্রম হয়নি। আজ শনিবার সরকারি ছুটির দিন থাকায় রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবের কর মেলা প্রাঙ্গণে ছিল উপচে পড়া ভিড়। করদাতারা কেউ রিটার্ন জমা দিয়েছেন, কেউ কর শনাক্তকরণ নম্বর (টিআইএন) নিয়েছেন। রাজধানী ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরে মেলা চলবে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত।

সকালে মেলার বিভিন্ন বুথ ও স্টল ঘুরে দেখেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া। মেলায় রিটার্ন দাখিলে সকলের সতস্ফুর্ত অংশগ্রহণ তিনি বলেন, আয়কর মেলায় ক্রমাগত মানুষের আগ্রহের পরিমাণ বাড়ছে। কোনোরকম হয়রানি ছাড়াই মানুষ দলে দলে আয়কর মেলায় রিটার্ন দাখিল করছে।

তিনি আয়কর কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আয়কর দিতে গিয়ে কেউ যেন কোন প্রকার ভয়-ভীতির সম্মুখীন না হয়, এ ব্যাপারে সকলকে সচেতন থাকতে হবে। তাহলেই আশানুরূপভাবে আয়কর দাতার সংখ্যা বাড়বে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, এবারের বাজেটে রাজস্ব আহরণের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে তা অর্জনে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা তার জন্য নিজেরাসহ অন্যদেরকে মোটিভেট করছি। যারা কর নেটের আওতার বাইরে আছেন তাদেরকে কর নেটের মধ্যে আনার চেষ্টা করছি। আমরা আশা করছি আগামী ২ থেকে ৩ বছরের মধ্যে কর আহরণে আমূল পরিবর্তন হবে।

এবারের আয়কর মেলার পরিধি গত বছরের তুলনায় বৃদ্ধি করে আয়কর রিটার্ন দাখিলের পাশাপাশি ই-টিআইন গ্রহণ, ই-পেমেন্ট, ই-ফাইলিং এবং ই-পেমেন্টের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এবারের মেলার বিশেষ আকর্ষণ মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা গ্রহণ করে করদাতারা রকেট, নগদ, বিকাশ ও শিওর ক্যাশের মাধ্যমে আয়কর জমা দিতে পারছেন বলে জানিয়েছে এনবিআর।

এছাড়াও করদাতাদের সুবিধায় এবার প্রথমবারের মতো আয়কর মেলার জন্য একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট (www.aykormela.gov.bd) চালু করা হয়েছে। এতে করদাতারা মেলায় না এসে ঘরে বসেই আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে পারছেন।

অর্থসূচক/এমআরএম/এমএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ