ArthoSuchak
সোমবার, ৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

সরবরাহ ব্যবস্থা উন্নয়নের মাধ্যমে রফতানি বাড়ানো সম্ভব: বিশ্বব্যাংক

বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান অর্থনীতির চাহিদা মেটাতে এবং রফতানি প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর জন্য পরিবহন ও সরবরাহ ব্যবস্থা উন্নত করা দরকার। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে প্রতিযোগিতার বাজারে বাংলাদেশ সাফল্য পেতে পারে। এতে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে আরও সহায়ক হবে।

আজ বুধবার রাজধানীর রেডিশন ব্লু হোটেলে বিশ্বব্যাংক আয়োজিত ‘টেকসই উন্নয়নের জন্য সংযোগ ও যোগাযোগ’ শীর্ষক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

এ সময় বাংলাদেশ ও ভুটানে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মের্সি টেম্বন বলেন, টেকসই উন্নয়নের জন্য সংযোগ এবং সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নতির মাধ্যমে বাংলাদেশের সাফল্য পেতে পারে। সরবরাহ ব্যবস্থাকে আরও দক্ষ করে তোলার মাধ্যমে বাংলাদেশ রফতানি প্রবৃদ্ধি উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করতে পারবে এবং তৈরি পোশাক ও টেক্সটাইল উত্পাদক হিসাবে শীর্ষস্থান বজায় রাখতে পারবে। ফলে আরও বেশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে পারবে।

তিনি বলেন, যানজটের কারণে বাংলাদেশে পণ্য পরিবহনে ব্যয় বেড়ে যায়। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে প্রতিযোগিতার বাজারে বাংলাদেশ সাফল্য পেতে পারে। এতে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে আরও সহায়ক হবে।

মের্সি টেম্বন আরও বলেন, দক্ষ সরবরাহ ব্যবস্থা বৈশ্বিক বাণিজ্য প্রতিযোগিতা এবং রফতানি বৃদ্ধিতে অন্যতম প্রধান চালিকা হয়ে উঠেছে। বিশ্ববাজারে অংশীদারিত্ব বাড়াতে গার্মেন্টস এবং টেক্সটাইল খাত বাংলাদেশকে সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। বর্তমান বাংলাদেশের মোট রফতানির ৮৮ শতাংশই আসে এ খাত থেকে। নতুন বাজার সৃষ্টি ও উচ্চমূল্যের কৃষিপণ্য উত্পাদন রফতানি আয় বৃদ্ধির জন্য অত্যাবশক।

তিনি বলেন, বাংলাদেশকে উন্নত করার জন্য বেসরকারি খাতের সাথে জড়িত সকল সরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সমন্বয় প্রয়োজন, মূল অবকাঠামোগুলোর কার্যকর দক্ষতা বৃদ্ধি, ব্যয় হ্রাস এবং মানের উন্নতি অন্যতম শর্ত।

বিশ্ব ব্যাংকের সিনিয়র অর্থনীতিবিদ মাতিয়াস হেরেরা দাপ্প বলেন, যোগাযোগ ও সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নয়নে বাংলাদেশের যথেষ্ট অর্থনৈতিক সুবিধা অর্জন কতে পারে। এতে প্রতিযোগিতামূলক বাজারে অবস্থান আরও জোরদার করবে, এতে কোন সন্দেহ নেই।

তিনি বলেন, তবে কেবলমাত্র বিনিয়োগ বৃদ্ধি নয়, সেবা ব্যবস্থার উপরও জোর দিতে হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান বলেন, প্রশাসন ও ব্যবসায়ীদের কার্যক্রমের কেন্দ্রস্থল ঢাকা হওয়ায় তারা একটি সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন। এতে পরিবহন ব্যয়ও বাড়ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, ভারতকে চট্টগ্রাম এবং মোংলা বন্দর ব্যবহারের প্রস্তাব করা হয়েছিলো। প্রস্তাবটি প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে।

অর্থসূচক/এনএম/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ